দ্বিতীয় দফায় জেতার পরে মানুষের সঙ্গে থাকা ফাঁক মেটাতে উদ্যোগী হলেন সাংসদ দেব ৷ বুধবার পশ্চিম মেদিনীপুরের ঘাটালে একটি সাংসদ কার্যালয়ের উদ্বোধন করে মানুষের অভাব অভিযোগ শোনার রাস্তা তৈরি করলেন তিনি ৷ মানুষের ইমেল, ম্যাসেজ নয়, লেখা  চিঠি দেওয়ার জন্য বক্সের ব্যবস্থা করলেন ৷ মানুষ যাতে সাংসদের শংসাপত্র পেতে পারে তার স্থায়ী কেন্দ্র তৈরি করলেন তিনি ৷ 

ঘাটালের তারকা সাংসদ দেব তথা দীপক অধিকারী জয়লাভ করার পরে বেশিরভাগ সময় কলকাতায় থাকেন ৷ তাই বহু মানুষ প্রয়োজন হলে তাদের অভাব অভিযোগ সহ সংশাপত্র নিতে তাঁর প্রতিনিধি তথা স্থানীয় ঘাটালের বিধায়ক শংকর দোলই ও ডেবরাতে অলোক আচার্য-র দ্বারস্থ্ হতেন ৷ সেখানে গিয়ে যথাযথ সমস্যার সমাধান হতো না বলেই দাবি বাসিন্দাদের ৷ তাই সরাসরি দেব- এর সঙ্গে এলাকার ও নিজেদের সমস্যা নিয়ে কথা বলার দাবি ছিল দীর্ঘদিনের ৷ 

সেই মতো বুধবার পশ্চিম মেদিনীপুরের দুটি স্থানে একই ধরনের সাংসদ কার্যালয়ের উদ্বোধন করলেন দেব ৷ প্রথমটি ঘাটাল পৌরসভার অন্তর্গত ১৭ নং ওয়ার্ডে ৷ স্থানীয় একটি বিল্ডিং-এর তিনতলাতে এই কার্যালয় করা হয়েছে ৷ যেখানে মিটিং হল , চিঠি বাক্স, কথা বলার অফিস রয়েছে ৷ এরপর একই রকম আরও একটি অফিসের উদ্বোধন করা হয়েছে ডেবরাতে ৷ যেখানে আগে একটি অফিস থাকলেও সেটি বাতিল করে পাশেই একটি নতুন বিল্ডিংয়ে আরও একটি অফিসের উদ্বোধন করা হয়েছে ৷ অফিসগুলিতে থাকবে নিজের সই করা প্যাড, যা বাসিন্দাদের প্রয়োজনে ব্যাবহার করা হবে ৷ কারও কোনো অভিযোগ বা কথা বলার দরকার থাকলে সেখানে রাখা বক্সে লিখিত জমা করবেন ৷ সেই মতো তাদের প্রয়োজন নিয়ে দু-মাসে একবার এসে নিজে হাতে সমাধানের উদ্যোগ বা কথা বলবেন মানুষের সঙ্গে ৷ 

এদিন ঘাটালের দাসপুরে একটি বিদ্যালয়ের সুবর্ণজয়ন্তী উৎসবেও যোগদান করেন দেব ৷ এদিন কার্যালয় উদ্বোদন করে দেব বলেন,মানুষের সঙ্গে একটা ফাঁক থাকছিলই ৷ সেটা কমাতে ও তাদের কথা শুনতে এখানে স্থানীয় কার্যালয় খোলা হল ৷ নিয়মিত এসে তাদের চিঠি নিয়ে বসব, ডেকে কথা বলব ৷ তাদের সমাধানের উদ্যোগ নেব৷  তারকা নয়, তাদের ঘরের ছেলে হয়ে কথা শোনার জন্য বসব ৷