পাকিস্তানে হিন্দুদের একটা বড় অংশ বাস করে সিন্ধ প্রদেশে। কিন্তু সেখানেও রেহাই নেই তাঁদের। বিগত বেশ কয়েক দিন ধরেই তাঁদের ওপর অত্যাচার চালাচ্ছে তাবলিগি জামাতরা। জোর করে ধর্মান্তরিত করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ উঠেছে। সদ্যোই সামনে এসেছে তেমনই একটি ভিডিও। আর তাই নিয়ে রীতিমত সরগরম পাক রাজনীতি। 

সেই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে সিন্ধ প্রদেশের বাসিন্দা হিন্দু ভিল সম্প্রদায়ের মানুষরা প্রতিবাদ জানাচ্ছেন। সেখানে তাঁরা বলছেন ধর্মান্তরিত হওয়ার থেকে তাঁরা মৃত্যুকেই শ্রেয় বলে মনে করবেন। পাশাপাশি তাঁরা আরও অভিযোগ করেছেন যে, তাঁদের ওপর চাপ তৈরি করতে তাঁদের পরিবারের সদস্যদের অপহরণ করা হচ্ছে। তেমনই এক মহিলা অভিযোগ করেছেন স্থানীয় তাবলিগি জামাতদের একটি দল তাঁদের তাঁর ছেলেকে অপরহরণ করেছেন। বারবার ফিরিয়ে দেওয়ার আবেদন জানিয়েও কোনও লাভ হয়নি। 

স্থানীয় তাবলিগি জামাতদের দলটি নাসুরপুর এলাকায় বসবাসরত হিন্দুদের ওপর ব্যাপক তাণ্ডব চালায় বলে অভিযোগ। মাঝেই মাঝেই তাঁদের বাড়ি ঘর ভেঙে দেওয়া হয় বলেও অভিযোগ করেছেন তাঁরা। চলে দেদার লুঠপাট। পাশাপাশি ওই এলাকায় বাস করতে হলে তাঁদের মুসলিম ধর্ম গ্রহণ  করতে হবে বলেও হুমকি দেয় তাবলিগি জামাতের দলটি। এমনই ভয়ঙ্কর অভিযোগ তুলেছেন তাঁরা। 

আরও পড়ুনঃ যোগীর কাছ থেকে দাবি আদায় করেই রণে ভঙ্গ দিলেন প্রিয়াঙ্কা, কংগ্রেসের পাল্টা ১২ হাজার বাস চালাবে সরকার ...

এই ঘটনা সামনে আসার পরই স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ডাক্তার রমেশ ভানকাওয়ানি ঘটনার তদন্তের দাবি করেছেন। তিনি শাসকদল তেহেরিক ই ইনসাফ পার্টিরও সদস্য। পাশাপাশি তিনি আরও বলছেন, সরকারের সংখ্যালঘু কাউন্সিলের অবিলম্ব পদক্ষেপ গ্রহণ করা জরুরী। যদি তা না হয় তাহলে পাকিস্তানে বসবাসরত  হিন্দুরা লাগাতার আন্দোলনের পথে যাবে বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি। 

আরও পড়ুনঃ 'সম্মান রক্ষার' নামে ২ কিশোরীর রক্তে ভিজল পাকিস্তানের মাটি, ভিডিও আপলোড করায় খুন ...

সরকারি হিসেব অনুযায়ী পাকিস্তানে ৭৫ লক্ষ হিন্দু বাস করেন। তবে স্থানীয়দের মত সেই সংখ্যা ৯০ লক্ষ। কিন্তু পাকিস্তানে হিন্দুদের নির্যাতন করা হয় বলেও বারবার অভিযোগ ওঠে। পাকিস্তানের বসবাসকারী সংখ্যালঘু সম্প্রদায় সমস্যায় রয়েছে বলে স্বীকার করে নিয়েছে সেদেশের মানবাধিকার কমিশনও। 

আরও পড়ুনঃ সোমবার সন্ধ্যে রুদ্র মূর্তি ধারণ করবে 'আমফান', দিঘার কাছেই ঘূর্ণি ঝড়ের অবস্থান জানিয়েছে প্রশাসন ...