এতদিন একের পর এক উস্কানিমূলক মন্তব্য করেছেন জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে। এইবার আর কাশ্মীর নয়, এনআরসি নিয়েও উস্কানিমবলক টুইট করলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এদিনই  অসমের চূড়ান্ত নাগরিকপঞ্জী বা এনআরসি প্রকাশ করা হয়েছে। তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন ১৯ লক্ষ মানুষ।

এই তালিকা প্রকাশের পরই টুইট করে ফের মুসলিম আবেগকে উস্কে দিতে চাইলেন পাক প্রধানমন্ত্রী। এদিন তিনি অসমে নাগরিকপঞ্জী সংশোধনের একটি খবর পোস্ট করেন। সঙ্গে লেখেন, ভারতীয় ও আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম থেকে মুসলিমদের বিরুদ্ধে মোদী সরকার যে জাতিগত শুদ্ধিকরণ চালাচ্ছে তার খবর আসছে। এর থেকেই বিশ্বে সতর্কবার্তা পৌঁছে যাওয়া উচিত যে কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল আসলে মুসলিমদের নিশানা করারই বিস্তারিত পরিকল্পনা ছিল।

এর আগে কাশ্মীর নিয়ে বারবার আন্তর্জাতিক মহলের দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করেছে পাকিস্তান। তবে বিভিন্ন দেশ এবং আন্তর্জাতিক একাধিক গোষ্ঠীই পাকিস্তানের পাশে দাঁড়ায়নি। এরপর ভারতে মোদী সরকার মুসলিমদের বিরুদ্ধে জাতিগত শুদ্ধিকরণ প্রক্রিয়া চালাচ্ছে বলে প্রচার শুরু করে। নরেন্দ্র মোদীকে হিটলারের সঙ্গেও তুলনা করা হয়।

আরো পড়ুন - বৈধ নাগরিক, কিন্তু এনআরসি-তে নাম নেই, কী করবেন তাহলে, জেনে নিন

আরো পড়ুন - লড়েছেন কার্গিল যুদ্ধে, তারপরও বিদেশীই হয়ে গেলেন রাষ্ট্রপতি পদকপ্রাপ্ত সেনা অফিসার

আরো পড়ুন - অসমে এনআরসি-র চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ, কোথায় কীভাবে দেখবেন আপনার নাম,জেনে নিন

আরো পড়ুন - লাগবে ৪০ হাজার থেকে লক্ষাধিক টাকা, এনআরসি-তে 'নাম তুলতে' ১২০দিন সময়সীমা

এরমধ্যেই পাকিস্তানে সংখ্য়ালঘুদের জোর করে ধর্মান্তরিত করা, আরও নানা অত্যাচারের অভিযোগ উঠেছে। এই বিষয় নিয়ে আন্তর্জাতিক মহলে চাপে আছেন ইমরান স্বয়ং। সম্প্রতি গুরু নানকের জন্মদিনের আগেই এক শিখ কন্যাকেও দোর করে ধর্মান্তরিত করে এক মুসলিমকে বিয়ে করতে বাধ্য করার অভিযোগ উঠেছে। কাজেই ইমরান এই প্রচারকেও কতদূর এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবেন, তাই নিয়ে সন্দেহ রয়েছে।