এই হল পাকিস্তান। বিয়েতে মানুষ অনেক কিছুই উপহার দেয়। খুব কাছের আত্মীয় হলে বহুমূল্য গয়না, আসবাব - এখনকার দিনে ক্যামেরা, আইপ্যাডের মতো যন্ত্রও দিয়ে থাকে। কিন্তু, তাই বলে অটোমেটিক কালাশনিকভ-৪৭ বা সহজ কথায় একে -৪৭ অ্যাসল্ট রাইফেল! তাও যে বিয়েতে উপহার দেওয়া যায়, তা দেখিয়ে দিল পাকিস্তান।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ৩০ সেকেন্ডের ভিডিও ক্লিপ ভাইরাল হয়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে পাশাপাশি বসে আছেন, বর-বউ। আর এক মহিলা বরের হাতে উপহার হিসাবে রাইফেলটি তুলে দিচ্ছে। বন্দুকটি হাতে নিতে বর উঠে দাঁড়ানোর পর দেখা যায়, তাঁর স্ত্রী মিটিমিটি হাসছেন। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী উপহারদাতা ওই মহিলা আর কেউ নন, স্বয়ং বরের শাশুড়ি।

ভিডিওটি অবাক করেছে নেটিজেনদের। উপহার হিসাবে একে-৫৭ দেওয়াটা যেমন বিস্ময়কর, তেমনই বিস্ময়কর হল, রাইফেলটি পেয়ে বর এতটুকু চমকে যাননি। উপস্থিত ব্যক্তিরাও সোল্লাসে এই উপহার দেওয়ার বিষয়টিকে মান্যতা দিয়েছেন। এমনকি উপস্থিত এক মহিলাকে বরকে বন্দুকটি উপরে তুলে ধরতে বলছেন, এমনটাও ভিডিওয় শোনা গিয়েছে। আর স্ত্রী যে কতটা আনন্দিত তাঁর হাসিই তার প্রমাণ। কাজেই একে-৪৭ উপহার দেওয়াটা বেশ নৈমিত্তিক বিষয় বলেই মনে হচ্ছে। এমনটা বোধহয় পাকিস্তানেই সম্ভব।

আরও পড়ুন - বঙ্গোপসাগরে উড়ে গেল জাহাজ, 'রণবীজয়' থেকে নৌবাহিনী ছুঁড়ল ব্রাহ্মোস

আরও পড়ুন - মাত্র ৫ বছর বয়সে মা হয়েছিলেন লিনা, চিকিৎসা বিজ্ঞান আজও খুঁজছে উত্তর

আরও পড়ুন - উড়ানেই চলছে খোলামেলা দেহ ব্যবসা, নগ্ন পায়ের ছবি পোস্ট করে লোভ দেখান বিমানসেবিকা

বস্তুত, পাকিস্তান অলিখিতভাবে বিশ্বের সবচেয়ে বড় অবৈধ অস্ত্রের বাজার। পাকিস্তানের উত্তর পশ্চিমাংশের দারা আদাম খেল উপত্যকা তো পরিচিতই বন্দুক উপকত্যকা বলে। এই শহরে একেবারে খোলা রাস্তাতেই ঢেলে বিক্রি করা হয় একে-৪৭ সহ বিভিন্ন মারাত্মক অস্ত্র।