২৬ নভেম্বর মুম্বই হামলার অন্যতম চক্রী ছিল সাজ্জিদ মীর। বর্তমানে সে রয়েছে পাকিস্তানে। আসএসআই এই সন্ত্রাসবাদীকে চূড়ান্ত নিরাপত্তা দিচ্ছে। রেখেছে অত্যন্ত যত্নসহকারে। তেমনই বলছে একটি মার্কিন রিপোর্ট। শুধু সাজ্জিদ নয়। আইএসআই-এর তত্ত্বাবধানে রয়েছে ২০১৯ সালে পুলওয়ামা হামলার মাস্টারমাইন্ড ও জইশ ই মহম্মদ নেতা মাসুদ আজাহারও। যদিও বরাবারই ইসলামাবাদ এই অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে। মার্কিন রিপোর্টে অভিযোগ করা হয়েছে পাকিস্তানে যেসব সন্ত্রাসবাদীরা রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে মামলা করতে অপরাগ ইমরান সরকার। 

মুম্বই হামলার অন্যতম চক্রী ডেভিড কোলম্যান হেডলির হ্যান্ডেলার হিসেবেই কাজ করত সাজ্জিদ। তার বর্তমান ঠিকানা রাওলপিন্ডির গর্ডেন ভিলা গাউজিং সোসাইটি, আদালিয়া জেল রোড। কখনও কখনও সে থাকে লাহরে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ৪৪ বছরের সাজ্জিদের মাথার দাম ধার্য করে ৫ কোটি টাকা। কিন্তু পাক প্রশাসনের রক্ষাকবচ থাকায় কিছুতেই তার নাগাল পাচ্ছে না। 

সরকারি বয়ানের উল্টো পথে হাঁটছে চিন, সংঘর্ষের আগেই গালওয়ানে পাঠান হয়েছিল সেনা ...

দিল্লির করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ে কেন্দ্র -রাজ্য টানাপোড়েন, বাকযুদ্ধ অমিত শাহ ও সিসোদিয়ার ..
লস্কর ই তৈবার সদস্য সাজ্জিদ, হল সেই ব্যক্তি যে মুম্বই হামলায় জঙ্গিদের হেড শর্ট নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল। ২০১০ সাল পর্যন্ত সাজ্জিদ লস্কর প্রধান জারিক উল রহমন লাকভির ছত্রছায়ায় একাধিক অপারেশন চালিয়েছে। বিদেশ থেকে জঙ্গি সংগ্রহের পাশাপাশি তাদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার কাজেও যুক্ত ছিল। পাকিস্তানের একাধিক সন্ত্রাসবাদী শিবিরে প্রশিক্ষণের দায়িত্ব ছিল তার হাতে। আইএসআই-এর ইন্ডিয়ান মুজাহিদিন অভিযানেও সাজ্জিদের সক্রিয় ভূমিকা ছিল।  ভারতীয় গোয়েন্দা সূত্রের খবর মুম্বই হামলার পরই মীরের পরিচয় গোপন করার উদ্দেশ্যে প্ল্যাস্টিক সার্জারি করা হয়েছিল। তবে তার নতুন কোনও ছবির এখনও হাতে পায়নি বলেই সূত্রের খবর।  ২০১২ সালেই মীরকে বিশ্বের মোস্ট ওয়ান্টেড জঙ্গির তালিকায় ফেলা হয়েছিল। নিরাপদে রাখা হয়েছিল মাসুদ সুদ আজাহারকে। কিন্তু আইএসআই-এর নির্দেশেই সজ্জিদ মীরকে রাডারের নিচে নিয়ে আসে পাক প্রশাসন। 

২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড ছাড়িয়ে করোনা আক্রান্ত দেশে, পাল্লা দিচ্ছে সুস্থ মানুষের সংখ্যাও ..