পিঙ্ক বল টেস্ট ক্রিকেটের স্বাদ আগে পাননি ভারত ও বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। লাল বল ও সাদা বলের থেকে বেশ কিছুটা আলাদা রকমের কাঠামোতে তৈরি হয় গোলাপি বল। বিভিন্ন দেশে কোকাবুরা ও ডিউক বলে খেলা হলেও, এবার ভারতে ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচ হতে চলেছে এসজি বলে। আর সেই বল মাঠে কেমন ব্যাবহার করবে ক্রিকেটারদের সঙ্গে সেটাও এখন দেখার। আর সেই কারণে এবার মহম্মদ সামির থেকে টিপস নিলেন বাংলাদেশের পেসার আবু জায়েদ। ভারতীয় ক্রিকেটার হিসাবে পিঙ্ক বলে ঘরোয়া ক্রিকেট খেলার অভিজ্ঞতা অনেকের থাকলেও, গোলাপি বলে ছাপ ফেলেছেন মহম্মদ সামি। সিএবির ঘরোয়া ক্রিকেটের ফাইনাল ইডেনে গোলাপি বলে খেলেছিলেন সামি। আর সেই সামির অভিজ্ঞতা অনুসারে তাঁর থেকেই এবার ভারত বাংলাদেশ ম্যাচের আগে টিপস নিলেন আবু।

আরও পড়ুন, ইডেন মাতাবে টিঙ্কু-পিঙ্কু, গঙ্গা থেকে ময়দান শহরে শুরু গোলাপি বিপ্লব

দুই দলের কাছেই এই বল নতুন। তবে প্রস্তুত কারকদের অনুযায়ী এই বলে পেসারদের ও বোলারদেরই বেশি সুবিধা হবে বলে জানা গিয়েছে। একই সঙ্গে এই বলে সুইং সব থেকে বেশিক্ষণ ধরেই হবে বলে বলেছেন অভিজ্ঞ সম্পন্ন ক্রিকেটাররা। তাই সেই নিয়ে মহম্মদ সামির সঙ্গে কথা বলেই প্রস্তুতি সারছেন আবু।  আইসিসিকে দেওয়া একটি সাক্ষাতকারে আবু গোলাপি বলের টেস্ট নিয়ে বলেন, সামি ভাইয়ের সঙ্গে আমি সবার আগে পিঙ্ক বল টেস্ট নিয়ে কথা বলেছি। আমার আর সামির মধ্যে বেশ কিছু মিল পেয়েছি। আমরা দুজনেই সিমের ওপর বোলিং করি। আর আমি সামিকে এই বিষয় নিয়ে অনেকদিন ধরেই লক্ষ্য করছি। কাছের থেকে দেখেছি। আর তাঁর বোলিংও রপ্ত করার চেষ্টা করেছি। আশা করি গোলাপি বলেও ভালো বোলিং করতে পারবো।

আরও পড়ুন, ইডেনে টিকিটের হাহাকার, ভারত-পাক ম্যাচের থেকেও বেশি উন্মাদনা বলছেন মহারাজ

প্রথম টেস্টে ভালো বোলিং করতে দেখা গিয়েছে বাংলাদেশের এই ক্রিকেটারকে। রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলি, চেতেশ্বর পূজারা সহ অজিঙ্কা রাহানেকে টেস্টে আউট করতে দেখা গিয়েছে আবু জায়েদকে। ২৬ বছর বয়সে বাংলাদেশের হয়ে বল হাতে বেশ ভালোই পারফর্ম করেছেন তিনি। আর সেই অনুযায়ী আগামী দিনেও এগিয়ে যেতে চান এই বাংলা টাইগার্স।