ভারতের প্রধান ব্যাডমিন্টন কোচ পুলেল্লা গোপীচাঁদ মনে করেন বর্তমান পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে জাপানের উচিত অলিম্পিকের সূচি পিছিয়ে দেওয়া। সারা পৃথিবী জুড়ে মহামারীর আকার নিয়েছে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ। কবের মধ্যে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসবে তা জানা নেই কারোর। এই সংকটজনক পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে অলিম্পিক আয়োজনের ঝুঁকি নেওয়াই উচিত নয় বলে মনে করেন গোপীচাঁদ। সারা পৃথিবী জুড়ে প্রায় ২ লক্ষ্য লোক এই মারণ ভাইরাসের দ্বারা আক্রান্ত। প্রায় ৮০০০ মানুষ এই ভাইরাসের কবলে পড়ে প্রাণ হারিয়েছেন। তার মধ্যে জুলাইয়ের ২৪ থেকে আগস্টের ৯ তারিখ অবধি এই টুর্নামেন্ট চালানো উচিত কিনা তা নিয়ে গোপীচাঁদের মতোই সন্দিহান অনেকেই। 

আরও পড়ুনঃকরোনা আতঙ্ক কাটিয়ে অক্টোবরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ করার বিষয়ে আশাবাদী অস্ট্রেলিয়া

আরও পড়ুনঃএবার কোয়ারেন্টাইনে গেলেন জুভেন্তাস কোচ, করোনার থাবায় জেরবার ক্লাব

এত কিছুর মধ্যেও ইন্টারন্যাশনাল অলিম্পিক কমিটি জানিয়েছে তারা পূর্বনির্ধারিত সময় অনুযায়ীই প্রতিযোগিতাটি হবে বলে আশাবাদী। গোপীচাঁদ একটি সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন যে তিনি প্রতিযোগিতাটি সময়মতো আয়োজনের ব্যাপারে সন্দিহান। পুনঃনির্ধারিত সময় মেনে আয়োজিত হলে আর খুব বেশি সময় নেই প্রতিযোগিতাটি শুরু হতে। এখন থেকেই আয়োজক এবং প্রতিযোগিদের প্রস্তুতি শুরু করতে হবে। তার মতে আইওসি-র এবার খুব ভেবে চিন্তে একটি সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত। সম্প্রতি আয়োজিত অল-ইংল্যান্ড ওপেনের আয়োজন নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন তিনি। তারও আগে অবশ্য সাইনা নেহওয়ালের মতো ব্যাডমিন্টন তারকারাও ব্যাপারটি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। 

আরও পড়ুনঃকরোনা ভাইরাস রুখতে ভিডিও বার্তা সচিনের, কী বললেন মাস্টার ব্লাস্টার

অল ইংল্যান্ড ওপেন খেলে যে সমস্ত ব্যাডমিন্টন তারকা দুবাই হয়ে ফিরেছেন তাদেরকে বর্তমানে নিজের নিজের বাড়িতে আইসোলেশনে থাকতে বলা হয়েছে। এই সিদ্ধান্তকে সমর্থন জানিয়েছেন গোপীচাঁদ। তার মতে এই সময়টুকু খেলোয়াড়রা বিশ্রাম নিয়ে তরতাজা এবং সুস্থ হয়ে ফিরুক। তার হায়দরাবাদের সাইয়ের অ্যাকাডেমীটিও আপাতত বন্ধ থাকছে ৩১শে মার্চ পর্যন্ত, জানিয়েছেন গোপীচাঁদ।