আর এক মাসের কিছু সময় বাকি শুরু হতে টোকিও অলিম্পিক। ভারতীয় অ্যাথলিটরা সারছে তাদের শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি। গতবারের তুলনায় অনেক বেশি সংখ্যক এবার অংশ গ্রহণ করতে চলেছে গেমসে। কিন্তু সকলকে আশাহত করে টোকিও অলিম্পিকসে দেখা যাবে না রিও অলিম্পিকের তারকা দীপা কর্মকারকে। করোনা অতিমারির কারণে একের পর এক যোগ্যতা অর্জন পর্বের প্রতিযোগিতাগুলো বাতিল হয়ে যাওয়াতেই স্বপ্ন ভেঙে গেল দীপার।

রিও অলিম্পিক অল্পে জন্য পদক পাননি জিমন্যাস্ট দীপা কর্মকার। তার প্রোদুনোভা ভল্টের প্রশংসা করেছিল গোটা বিশ্ব। কিন্তু অল্প কিছু পয়েন্টর জন্য সাথ দেয়নি ভাগ্য। কিন্তু দীপা কর্মকার ভারতীয় জিমন্যাস্টিক্স একটা অন্য পর্যায়ে নিয়ে গিয়েছিলেন। ভারতে জিমন্যাস্টিক্সের জনপ্রিয়তা এক লহমায় বহুগুন বাড়িয়ে দিয়েছিলেন দীপা। তাকে দেখেই নতুন করে স্বপ্ন দেখছিল অনেকেই। কিন্তু স্বপ্নভঙ্গ হল দীপা কর্মকারের। দীপার কোচ বিশ্বেশ্বর নন্দী আগে জানিয়েছিলেন, যদি শেষ মুহূর্তে কোনো যোগ্যতা অর্জন পর্বের প্রতিযোগিতা হয়, তা হলে দীপার একটা সম্ভাবনা থাকবে। সেই যোগ্যতা অর্জন পর্বের একটা প্রতিযোগিতা শেষ মুহূর্তে আয়োজন করেছে আন্তর্জাতিক জিমন্যাস্টিক্স সংস্থা। এই মাসের ২৩-২৬ তারিখ, দোহায়। কিন্তু জানা গিয়েছে, এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে সোনা পেলেও দীপার পক্ষে আর টোকিয়ো যাওয়া সম্ভব হচ্ছে না।

দীপার রিও অলিম্পিকে না যাওয়ার কারণ হিসেবে তারকা অ্যাথলিটের কোচ বিশ্বেশ্বর নন্দী জানিয়েছেন,ভল্টে দীপার এখন মোট পয়েন্ট ৩৬। র‍্যাঙ্কিংয়ে ৯ নম্বরে। সোনা পেলে আরও ৩০ পয়েন্ট যোগ হবে। সে ক্ষেত্রে সব মিলিয়ে হবে ৬৬। কিন্তু অলিম্পিকে যোগ্যতা অর্জন পর্বের জন্য দরকার মোট ৯০ পয়েন্ট। যা মোট তিনটি বিশ্বকাপ অংশ নিলে তোলা যায়। করোনা ভাইরাস অতিমারীর কারণে একের পর এক প্রতিযোগিতা বাতিল হওয়াতেই দীপার স্বপ্নভঙ্গ হল বলে জানিয়েছেন বিশ্বেশ্বর নন্দী।