মঙ্গলবার সকালেই কলকাতায় এসেছেন দেবী শেঠি। সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে দেখে বিস্তারিতভাবে জানালেন কেমন আছে মহারাজের শরীর। শনিবার বুকে ব্যাথা, বমিভাব নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। হার্টে বেশ কিছু ব্লকেজের জেরেই এই সমস্যা বলে প্রাথমিকভাবে জানানো হয়েছিল হাসপাতালের পক্ষ থেকে। তড়িঘড়ি বসিয়ে দেওয়া হয় মেডিক্যাল টিম। কথা বলা হয় হার্ট স্পেশালিস্ট দেবী শেঠির সঙ্গে। মঙ্গবার তিনি নিজেই হাজির হন হাসপাতালে। 

আরও পড়ুন- সৌরভকে দেখতে শহরে দেবী শেঠি, তারপরই ছুটির সিদ্ধান্ত ঠিক হবে 'মহারাজের'

সোমবার রাতে ভালো ঘুম হয়েছে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের। সকালকে উঠে ব্রেকফাস্ট করেছেন তিনি। কথা বলেছেন ডাক্তারদের সঙ্গেও। এদিন দীর্ঘক্ষণ বৈঠক ও সৌরভের সঙ্গে কথা বলার পর মিডিয়ার সামনে মুখ খোলেন দেবী শেঠি। তিনি জানান, সৌরভের হার্টে যে ব্লকেজ আছে তা তাঁকে শারীরিকভাবে কোনও সমস্যায় ফেলবে না। সৌরভের হার্ট ২০ বয়সে ঠিক যেমনটা ঠিল এখনও তেমনই আছে। 

পাশাপাশি তিনি আরও জানান, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ন্যাশানাল এসেট। এখানে যে পরিসেবা পেয়েছেন, তার থেকে ভালো পৃথিবীর কোনও প্রান্তেই পেতেন না। বেস্ট কেয়ার দেওয়া হয়েছে সৌরভকে। চিন্তার কোনও কারণ নেই। চিকিৎসা সংক্রান্ত কোনও সিদ্ধান্ত তাঁর বা কোনও ডাক্তারের একার নয়। পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে থাকা হার্ট স্পেশালিস্টদের পরামর্শ নিয়ে তবেই সৌরভের চিকিৎসা করা হয়। 

 

বুধবারই দেওয়া হবে সৌরভকে ছুটি। দু থেকে তিন সপ্তাহ পর আবার চেকআপ করা হয়ে। এর জেরে সৌরভের লাইফস্টালে কোনও পরিবর্তন হবে না। সাধারণ মানুষ যে লাইফস্টাইল মেনে চলে তিনিও ঠিক তেমনটাই করতে পারবেন, ঠিক আগের মত। মোট ১৫ জন ডাক্তারের পরামর্য নিয়েই সুস্থ করে তোলা হয়েছে দাদাকে। এদিন দেবী শেঠি আরও জানান, চিন্তার কোনও কারণ নেই। একদম ঠিক আছেন সৌরভ।