করোনা ভাইরাসের কারণে অলিম্পিকের ভবিষ্যতের আকাশে কালো মেঘ আরও গাঢ় হল। এত দিন পর্যন্ত পৃথিবীর অন্যান্য দেশ দাবি করছিল টোকিও ২০২০ স্থগিত রাখার জন্য। অলিম্পিক পিছিয়ে দেওয়ার জন্য আইওসিকে চিঠিও দিয়েছিল অ্যাথলিটরা। যদিও এতদিন পর্যন্ত জাপান ও আইওসি দুজবেই চেষ্টা চালাচ্ছিল নির্দিষ্ট সময়েই প্রতিযোগীতা করানোর। গোঁসা ছেড়ে এবার পিছু হটল জাপানও। অলিম্পিক পিছিয়ে দেওয়ার পক্ষে সওয়াল করলেন খোদ আয়োজক দেশ জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে। 

আরও পড়ুনঃকরোনায় আক্রান্ত ফুটবলার ফেলাইনি,চিনের হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বেলজিয়ান তারকা

সোমবার জাপানের সংসদে শিনোজো আবে বলেন, যদি পূর্ণাঙ্গ ভাবে অলিম্পিক আয়োজন না করা যায়, তবে তা পিছিয়ে দেওয়া হোক। পূর্ণাঙ্গ অলিম্পিক করতে না পারলে আমাদের তা পিছিয়ে দেওয়া ছাড়া হাতে কোনও বিকল্প নেই। রবিবার  টোকিয়ো গেমসের প্রধান ইয়োশিরো মোরির কাছে নিজের মতামত জানিয়েও দিয়েছেন তিনি। যিনি আইওসি প্রেসিডেন্ট টমাস বাখের কাছে এই ব্যাপারে আলোচনা করেওছেন। এর আগে জাপানের স্থানীয় বাসিন্দারাও অলিম্পিক পিছিয়ে দেওয়ার পক্ষে সওয়াল করেছে।  কারণ অলিম্পিক হলে লক্ষাধিক মানুষের সমাগম হবে জাপানে। বিভিন্ন দেশের মানুষ একত্রিত হবেন। ফলে সেখান থেকে করোনা ভাইরাসের সমক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার একটা আশঙ্কা একটা থেকেই যাচ্ছে। প্রশাসনের পক্ষে এত মানুষের দিকে নজরদারি রাখা সম্ভব নয়। টোকিওর এক ব্যবসায়ী এ প্রসঙ্গে বলছিলেন, মানুষের জীবন সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আয়োজকদের সেটা ভাবা উচিৎ।

আরও পড়ুনঃবিদেশে গিয়ে আইসোলেশনে শাকিব আল হাসান, সকলকে সুস্থ ও সচেতন থাকার পরামর্শ

শুধু জাপানের প্রধান মন্ত্রীইন নয়, বিগত কয়েক দিনে অলিম্পিক পিছিয়ে দেওয়ার পক্ষে সওয়াল করেছেন অনেকে। অলিম্পিক্স নিয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময় চলে এসেছে বলে মনে করছেন বিশ্ব অ্যাথলেটিক্স সংস্থার প্রেসিডেন্ট এবং কিংবদন্তি অ্যাথলিট  সেবাস্তিয়ান কো। করোনাভাইরাসের জন্য বিশ্বের বহু অ্যাথলিট এবং ফেডারেশন টোকিয়ো অলিম্পিক্স পিছিয়ে দেওয়ার দাবি তুলেছে। যার পরিপ্রেক্ষিতে কো বলেছেন, ‘‘আগামী কয়েক দিন বা সপ্তাহের জন্য অলিম্পিক্স নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া জরুরি হয়ে পড়বে।’’ যোগ করেন, ‘‘গত সপ্তাহেও বলেছি, যে কোনও মূল্যে অলিম্পিক্স নির্ধারিত সময়ে করতেই হবে এমন কথা নেই। অ্যাথলিটদের স্বাস্থ্যের ব্যাপারটাও মাথায় রাখা জরুরি।’’ 

আরও পড়ুনঃকরোনা মোকাবিলায় দেশবাসীকে জনতা কার্ফু চালিয়ে যাওয়ার আবেদন অশ্বিনের

অতিমারি করোনাভাইরাস সংক্রমণ গোটা বিশ্বেই ভয়ঙ্কর রূপ নেওয়ায় কিংবদন্তি অ্যাথলিট কার্ল লুইস চান, টোকিয়ো অলিম্পিক্স অন্তত দু’বছর পিছিয়ে দেওয়া হোক। একই দাবি করেছে, যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় অ্যাথলেটিক্স ও সাঁতার সংস্থা। লুইস তাঁদের দাবিকেই সমর্থন করেছেন।এখন করোনা-আতঙ্ক ক্রমশ টোকিয়ো অলিম্পিক্স গেমসের উপরে ছায়া ফেলতে শুরু করেছে। অলিম্পিকের বিকল্প তারিখ কী হতে পারে, সেই আলোচনাও শুরু হয়েছে।টোকিয়ো অলিম্পিক্স গেমসের কর্তারাও নাকি চিন্তাভাবনা শুরু করে দিয়েছেন বিকল্প ব্যবস্থা নেওয়ার।