দরকার আর মাত্র ৬ পয়েন্ট। হাতে রয়েছে এখনও ৫টি ম্যাচ। দুটি ম্যাচ জিততে পারলেই পঞ্চমবারের ল জন্য দেশের সেরা ক্লাবের শিরোপা জিতবে মোহনবাাগান। ফলে আই লিগ ট্রফি জয় এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা বলেই মনে করছে মোহনবাগান ক্লাব কর্তৃপক্ষ। ইতিমধ্যেই বিজয় উৎসবের প্রস্তুতিও শুরু করে দিয়েছে ক্লাবের সমর্থকরা। ক্লাব তাবুতে ট্রফি নিয়ে আসার ক্ষেত্রে বিশেষ শোভাযাত্রারও পরিকল্পনা রয়েছে সবুজ-মেরুণ কর্মকর্তাদের। এককথায় বলাই যায় দুরন্ত গতিতে ছুটছে বাগানের পাল তোলা নৌকা। কর্তৃপক্ষ, ফুটবলার থেকে সমর্থক ময়দানের মোহনবাগান তাবু জুড়ে এখন শুধুই উৎসবের আবহ।

আরও পড়ুনঃঅবনমন বাঁচাতে জনি আকোস্টাই ভরসা ইষ্টবেঙ্গলের, আশায় বুক বাঁধছেন সমর্থকরা

এই উৎসবের আবহের মধ্যেই বৃহস্পতিবার ঘরের মাঠে কল্যাণিতে চেন্নাইয়ের বিরুদ্ধে খেলতে নামছে মোহনবাগান। যদিও কোনও ম্যাচকেই হালকাভাবে নিতে নারাজ বাগান কোচ কিভু ভিকুনা। তাই সর্বশক্তির দল নিয়েই জয়ের জন্য ঝাঁপাতে চলেছে মোহনবাগান। ফুটবলারদের দুরন্ত ফর্মও ভরসা জোগাচ্ছে বাগান কোচকে। গোলের মধ্যে রয়েছেv বাগানের অ্যাটিকং লাইনের বাবা দিওয়ারা, সুহের, ত্রুসনভরা। যদিও গত ম্যাচে ট্রাউয়ের বিরুদ্ধে লাল কার্ড দেখার জন্য চেন্নাইয়ের বিরুদ্ধে ত্রুসনভকে পাচ্ছে না বাগান। অপরদিকে মাঝমাঠেও দুরন্ত ফর্মে রয়েছে বেইতিয়া, গঞ্জালেজ, সাহিলরা। ফরওয়ার্ড লাইনের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে গোল করছেন গঞ্জালেজ ও বেইতিয়া। ফুটবল বিশেষজ্ঞদের মতে মাঝমাঠের বোঝাপড়াই এই মরসুমে মোহনবাগানের সাফল্যের অন্যতম রসদ। রক্ষণে ভরসা জোগাচ্ছেন লালরামচুলোভা, মোরান্তে ও ধনচন্দ্র সিংরা। ফলে পুরো টিম গেমের উপরই ভরসা করেই চেন্নাই বধের ছক কষছেন কিভু ভিকুনা। 

আরও পড়ুনঃএফ এ কাপের শেষ আটে চেলসি, লিভারপুলকে হারাল ২-০ গোলে

আরও পড়ুনঃনির্বাচন কমিটিতে বদল, এমএসকে প্রসাদের জায়গায় আসতে চলেছেন সুনীল জোশী

অপরদিকে প্রথম লিগে হারের বদলা নিতে মরিয়া চেন্নাইও। আই লিগের প্রথম পর্বে ঘরের মাঠে লড়াই করেও ৩-২ ব্যবধানে হারতে হয়েছিল আক্বর নাওয়াসের দলকে। তাই ট্রফি জয়ের সুযোগ না থাকলেও, মোহনবাগানের আই লিগ জয়ের স্বপ্নকে আরও কিছুটা দীর্ঘায়িত করতে বদ্ধপরিকর ফিটো, মুজাঙ্গু, এসলাভা, কাতসুমিরা। যদিও এই মুহুর্তে মোহনবাগান যেই স্বপ্নের ফর্মে রয়েছে তাতে কল্যাণিতে গঙ্গাপারের ক্লাবকেই এগিয়ে রাখছেন ফুটবল বিশেষজ্ঞরা।