স্প্যানিশ একটি সংবাদপত্র কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রাফায়েল নাদাল জানিয়েছেন যে খেলাধুলার জগৎ যখন আবার স্বাভাবিক নিয়মে ফিরবে তখন নতুন কিছু নিয়ম আসবে যা সকলকে মেনে নিতে হবে। প্রতিষেধক বাজারে আসার পরে জকোভিচ থেকে শুরু করে তাকে এবং প্রত্যেক খেলোয়াড়-এর তা গ্রহণ করা উচিত বলে জানিয়েছেন রেকর্ড সংখ্যক ফ্রেঞ্চ ওপেন জয়ী কিংবদন্তি। টপ লেভেলে খেলতে গেলে এই প্রতিষেধক যে নিতেই হবে তাও জানিয়েছেন নাদাল।

আরও পড়ুনঃপ্রয়োজনে পরিবেশ বান্ধব স্টেডিয়ামে হবে খেলা,ভারত-অস্ট্রেলিয়া সিরিজ করতে মরিয়া দুই বোর্ড

যদিও নাদাল জানিয়েছেন কোনও খেলোয়াড়কে এই প্রতিষেধক নেওয়ার ব্যাপারে জোর করা উচিত নয়। এটা প্রত্যেকের নিজের সিদ্ধান্ত হওয়া উচিত। যদিও তিনি মনে করেন খেলাধুলা সংক্রান্ত ব্যাপার বজায় রাখতে এই প্রতিষেধক ছাড়া উপায় নেই। নয়তো এক দেশ থেকে অন্য দেশে যাওয়ার ব্যাপারে সবসময় একটি ঝুঁকি থেকেই যায়। অবশ্য টেনিস খেলতে গেলে যদি প্রতিষেধক বাধ্যতামূলক করে দেওয়া হয়, সেক্ষেত্রে সকলকে তা নিতেই হবে। 

আরও পড়ুনঃলকডাউনে ফের মানবিক সচিন, পাশে দাঁড়ালেন ৪ হাজার দুঃস্থ মানুষের

আরও পড়ুনঃচুক্তিভঙ্গের অভিযোগে কোয়েসের বিরুদ্ধে ফিফায় অভিযোগ জানাতে চলেছেন মারিও রিভেরা

সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে সার্বিয়ান তারকা নোভাক জকোভিচ জানিয়েছিলেন যে প্রতিষেধক যদি বাধ্যতামূলক হয় তাহলেও তিনি তা নিতে অস্বীকার করবেন। যদিও পরে তিনি তার সেই অবস্থান থেকে সরে এসেছেন। শেষ সোমবার তাকে স্পেনের একটি ক্লাবে টেনিস খেলতে দেখা যায়। যদিও পরে সেই ক্লাব কর্তৃপক্ষ ১৭ বার গ্র্যান্ড স্ল্যাম বিজয়ীকে প্র্যাকটিস করার অনুমতি দিয়ে যে ভুল করে ফেলেছেন তা স্বীকার করে নিয়েছে। গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ের নিরিখে সর্বকালের সেরাদের মধ্যে তিন নম্বরে আছেন জকোভিচ। তার আগে রয়েছেন ফেদেরার এবং নাদাল।