করোনা ভাইরাসের জেরে অনিশ্চিত অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ভবিষ্যত।  আদৌ বিশ্বকাপ হবে কিনা, হলেই বা কোন পথে সেই বিষয়ে উত্তর অজানা সকলের। তবে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার পক্ষ থেকে বিশ্বকাপ করার যথাসাধ্য চেষ্টা করা হচ্ছে। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে অনিশ্চয়তা থাকলেও ভারত-অস্ট্রেলিয়া সিরিজ করতে বদ্ধপরিকর দুই দেশের ক্রিকেট বোর্ড।  করোনার রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে, সুরক্ষার জন্য যাবতীয় ব্যবস্থা করেই নির্ধারিত সূচি মেনেই অস্ট্রেলিয়া সফরে যাবে ভারতীয় ক্রিকেট দল। শনিবার এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে এমনটাই জানিয়েছে বিসিসিআইয়ের এক সূত্র। করোনার আর্থিক ধাক্কা সামলাতে সময়মতো এই সিরিজ আয়োজনে মরিয়ে দুই দেশের বোর্ডই। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া ও বিসিসিআই এই সিরিজ করতে এতটাই মরিয়া যে ভিন্ন পথের ভাবনাও চলছে। বিসিসিআই সূত্রে জানানো হয়েছে, প্রয়োজনে ভারত-অস্ট্রেলিয়া সিরিজ হবে পরিবেশবান্ধব স্টেডিয়ামে।

আরও পড়ুনঃলকডাউনে ফের মানবিক সচিন, পাশে দাঁড়ালেন ৪ হাজার দুঃস্থ মানুষের

আরও পড়ুনঃচুক্তিভঙ্গের অভিযোগে কোয়েসের বিরুদ্ধে ফিফায় অভিযোগ জানাতে চলেছেন মারিও রিভেরা

এ বছর অক্টোবরে ব্র্যাডম্যানের দেশে টি-টোয়েন্টি সিরিজ দিয়ে সফর শুরু করার কথা টিম ইন্ডিয়ার। ডিসেম্বরে রয়েছে টেস্ট সিরিজ। কিন্তু করোনার জেরে নির্ধারিত সূচিতে আদৌ খেলা যাবে কি না, তা নিয়ে একাধিক প্রশ্নচিহ্ন ছিল। ততদিনেও পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে নাকি তা নিয়েও সন্দিহান সকলে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে দুই দেশের আন্তর্জাতিক বিমান চলাচলও ঠিক হবে কিনা তানিয়েও রয়েছে প্রশ্ন চিহ্ন। তবে, এসবের মধ্যেও ভারতীয় বোর্ডের সুত্র জানিয়ে দিল, পরিস্থিতি যাই হোক অক্টোবরেই অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে খেলবেন বিরাটরা। যদি অস্ট্রেলিয়ায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বাতিল হয়, তাহলে টি-টোয়েন্টির পরই টানা টেস্ট সিরিজও খেলে নেবে ভারত। প্রয়োজনে পরিবেশ বান্ধব স্টেডিয়ামে খেলানো হবে ম্যাচগুলি। জাতীয় দলের নির্বাচক প্রধান সুনীল যোশিও চাইছিলেন টি-২০ সিরিজ দিয়ে ক্রিকেটে ফিরুক ভারত, বোর্ডও সেটাই চাইছে। ছোট ফরম্যাট দিয়ে ক্রিকেট শুরু হলে ক্রিকেটারদের ফিটনেসের সমস্যা হবে না। তাই এই সিরিজ সময়মতো হওয়াতে চাইছে বিসিসিআই। অন্যদিকে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া ভাবছে এই সিরিজের আর্থিক দিক। সিরিজটি নাহলে অন্তত ৩০ কোটি ডলার লোকসান হবে অজি বোর্ডের। সেকারণে যে কোনও মুল্যে তাঁরা সিরিজ আয়োজনে মরিয়া। এমনকী, ভারতীয় ক্রিকেটারদের যদি অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনেও থাকতে হয়, তাতেও আপত্তি নেই দুই বোর্ডের। 

আরও পড়ুনঃবুন্দেসলিগায় ফুল ফুটিয়েছেন এই বাঙালি কোচ,জানুন রবিন দত্তের কাহিনী