দেশ জুড়ে ক্রমশ বাড়ছে করোনা ভাইরাসের মারণ প্রকোপ। আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়ে গিয়েছে ১ লক্ষ ৬৫ হাজার। মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৪ হাজার ৭০০। পরিস্থিতি মোকাবিলায় দেশ জুড়ে চলছে চতুর্থ দফার লকডাউন। কিন্তু তারপরও লাগাম টানা সম্ভব হচ্ছে না করোনা ভাইরাসের সংক্রমণে। ইতমধ্যেই করোনা ভাইরাসের ব্যাপক প্রভাব পড়েছে দেশের ক্রীড়া ক্ষেত্রে। করোনার করাল গ্রাসে একের পর এক টুর্নামেন্ট বাতিল কিংবা স্থগিত হয়ে যাচ্ছে। অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত হয়ে গিয়েছে আইপিএল। মাঝ পথেই বাতিল ঘোষণা করতে হয়েথে আইলিগকে। দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে হয়েছে আইএসএল ফাইনাল। অলিম্পিক, ইউরো কাপ, কোপা আমেরিকা, উইম্বলডন এবছরের মত বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। এবার করোনার গ্রাসে আরও জাতীয় স্তরের স্পোর্টিং ইভেন্ট। বৃহস্পতিবার স্থগিত করে দেওয়া হল ৩৬তম জাতীয় গেমস।

আরও পড়ুনঃঅক্টোবরের আগে সম্ভব নয় কলকাতা ফুটবল লিগ,জানিয়ে দিল আইএফএ
 
আগামী অক্টোবর-নভেম্বরে গোয়ায় হওয়ার কথা ছিল জাতীয় গেমস। সম্প্রতি সর্বভারতীয় অলিম্পিক সংস্থা গোয়া কর্তৃপক্ষের কাছে জানতে চায়, আগামী ২০ অক্টোবর থেকে তারা জাতীয় গেমস আয়োজন করতে পারবে কি না? কিন্তু যে ভাবে দেশে করোনা সংক্রমণ উত্তরোত্তর বাড়ছে, তার পর আর গেমস আয়োজন নিয়ে ঝুঁকি নেওয়া হয়নি। এদিন আইওএ প্রেসিডেন্ট নরেন্দর বাত্রা এক বিবৃতি মারফত বলে দেন,'আয়োজক কমিটি এবারের মতো জাতীয় গেমসকে স্থগিত করেছে। আগামী সেপ্টেম্বরে ফের বৈঠকে বসবে কমিটি। গেমস নিয়ে পরবর্তীতে কী করা যায় না যায়, তা তখন ঠিক করা হবে। গেমস আয়োজন করতে চার মাস আগে থেকে অনুমতি নেওয়া প্রয়োজন। গোয়া সরকার সেটাই করবে।'শেষ বার জাতীয় গেমস হয়েছিল ২০১৫ সালে। কেরলে। কিন্তু এবার নির্ধারিত সময়ে সেটা আর করা গেল না।  

আরও পড়ুনঃকেন ঘুসি মেরে স্টিভ ওয়ার কেরিয়ার শেষ করে দিতে চেয়েছিলেন তিনি,জানালেন ক্যারেবিয়ান পেসার

আরও পড়ুনঃআমফান মোকাবিলায় আর্থিক সাহায্য কেকেআরের, শহরজুড়ে বৃক্ষরোপণ করবে কিং খানের দল

কিন্তু দেশ জুড়ে যেভাবে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে তাতে সেপ্টেম্বরের মধ্যে পরিস্থিতি কতটা স্বাভাবিক হবে তা নিয়ে একটা প্রশ্ন চিহ্ন থেকেই যাচ্ছে। সেই সময় বৈঠকের পরই আগামী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে ভারতীয় অলিম্পিক সংস্থার তরফে। তবে অ্যাথলিটদের সুরক্ষার বিষয় নিয়ে কোনও রকম ঝুঁকি নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে অলিম্পিক সংস্থা। প্রতিযোগিতা হলেও অ্যাথলিটদের সুরক্ষার সমস্তরকম ব্যবস্থা করার পরেই হবে জাতীয় গেমস।