যত দিন এগোচ্ছে ততই রাজ্যের করোনা পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছে। প্রতিদিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। করোনার জেরে গোটা দেশের মতই বন্ধ রয়েছে রাজ্যের সমস্ত স্পোর্টিং ইভেন্ট। বিশেষ করে এই সময় চলতো ঘরোয়া ফুটবল লিগ। যা কবে হবে, আদৌ এবছর হবে কিনা তা নিয়ে তৈরি হয়েছে সংশয়। কিন্তু লিগ করতে বদ্ধপরিকর আইএফএ। কিন্তু লিগ শুরুর ক্ষেত্রে প্লেয়ার, কোচ ও সাপোর্টিং স্টাফদের সুরক্ষা , স্বাস্যবিধি, লিগের সূচি এই সকল বিষয় নিয়ে সরকারের সঙ্গে আলোচনা করেই এগোতে চাইছে আইএফএ কর্তারা। ১ জুন থেকে আইএফএ অফিস খুলে দেওয়ার কথা ভাবছেন রাজ‌্য ফুটবল সংস্থার কর্তারা।  তবে এবছর ঘরোয়া ফুটবল লিগ যে অক্টোবরের মাসের আগে শুরু সম্ভব নয় তা জানিয়ে দিয়েছেন,আইএফএ সচিব জয়দীপ মুখোপাধ‌্যায়। 

আরও পড়ুনঃভারতের অস্ট্রেলিয়া সফরের গতিপথ চূড়ান্ত করলো ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া

লিগ শুরুর পরিকল্পনা ঠিক করতে  আইএফএ অফিস খোলার পরই শহরের বিশিষ্ট চিকিৎসকদের নিয়ে একটি কমিটি  সিদ্ধান্ত নিয়েছেন জয়দীপ মুখোপাধ্যায়।  সেই কমিটির পরামর্শ অনুযায়ী তাঁরা চলতে চায় আইএফএ। জয়দীপ মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন,'স্বাস্থ‌্যবিধি মেনে আমাদের চলতেই হবে। তাই ডাক্তারদের নিয়ে একটা কমিটি গড়া হচ্ছে। তাঁরা যা পরামর্শ দেবেন, সেই অনুযায়ী আমরা চলব। তাছাড়া সরকারের সঙ্গে আমরা সব সময় যোগাযোগ রাখব। সরকারের দেওয়া স্বাস্থ্যবিধি ও সমস্ত নিয়ম-কানুন তারা যেভাবে বলবে, সেইভাবেই আইএফএ চলবে।সুরক্ষার বিষয়ে কোনও খামতি করা হবে না'।

আরও পড়ুনঃদর্শকসংখ্যা কমিয়ে ম্যাচ আয়োজনের ভাবনা সারে-র

আরও পড়ুনঃশুরু হচ্ছে লা লিগা,করোনায় মৃতদের উৎসর্গ করা হবে প্রথম ম্যাচ

কিন্তু অক্টোবরে কীভাবে লিগ শুরু হবে তা নিয়েও উঠছে প্রশ্ন। কারণ ওই একই সময় চলে আইলিগ ও আইএসএল। তিনটি লিগ একসঙ্গে করা একটি জটিল বিষয়। তাহলে কীভাবে লিগ চলা সম্ভব? জবাবে জয়দীপ বললেন,'আমরা ক্লাবগুলোর সঙ্গে বসেই কথা বলে ক্রীড়াসূচি তৈরি করব। মাঠ নিয়ে কোনও সমস‌্যা হবে না। তবে এটুকু বলতে পারি লিগ চালু করার ব‌্যাপারে আমরা সক্রিয় ভূমিকা নেব'। তবে ঘরোয়া লিগ করার আগে আইএফএ চাইছে ট্রেডস কাপ বা আইএফএ শিল্ডের মতো একটা নকআউট টুর্নামেন্ট করতে। যাতে লিগ শুরু আগে উদ্ভূত সমস‌্যার সমাধান করা সম্ভব হয়। এই টুর্নামেন্টগুলির থেকে অর্জিত অভিজ্ঞতা ঘরোয়া লিগ পরিচালনার ক্ষেত্রে কার্যকরী হবে বলেও মত আইএফএ সচিবের।