করোনা ভাইরাস থাবা বসিয়েছে বিশ্ব জুড়ে সর্বস্তরের ক্রীড়া ক্ষেত্রে। যার জেরে ব্যাপক ধাক্কা খেয়েছে টেনিসও। একইসঙ্গে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর এই প্রথম বাতিল হয়েছে উইম্বলডন। আগামি বছর হবে প্রতিযোগিতা। কিন্তু এই বছর প্রতিযোগিতা বাতিল হওয়ায় কিছুটা হতাশ ছিলেন টেনিস তারকারা। কিন্তু একটিও ম্যাচ না খেলা হলেও জয়ী হল উইম্বলডন। করোনা মহামারীর কারণে টুর্নামেন্ট বাতিল হলেও,পুরস্কার অর্থ ভাগ করে দেওয়া হবে সকল প্লেয়ারদের মধ্যে। ঘোষণা করল  অল ইংল্যান্ড লন টেনিস ক্লাব। যা অভিনব সিদ্ধান্ত বলেই মনে করছে গোটা টেনিস বিশ্ব।

আরও পড়ুনঃজয় বার্সার, নতুন রেকর্ড লিওনেল মেসির

উইম্বলডন বাতিল হয়েছে বটে, তবে তার জন্য বিশেষ ক্ষতির মুখ দেখতে হয়নি আয়োজকদের। কেননা, মহামারির শর্তে টুর্নামেন্টের বীমা করিয়ে রেখেছিলেন আয়োজকরা। বীমা সংস্থার সঙ্গে আলোচনার পর কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত নেয় যে, ১২.৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার পুরস্কার অর্থ মোট ৬২০ জন খেলোয়াড়ের মধ্যে ভাগ করে দেবে তারা। ব়্যাঙ্কিং অনুযায়ী যে ২৫৬ জন খেলোয়াড়ের মূলপর্বে অংশ নেওয়ার কথা ছিল, তাঁদের প্রত্যেককে ৩১ হাজার মার্কিন ডলার করে দেওয়া হবে। যে ২২৪ জন খেলোয়াড়ের যোগ্যতা অর্জন পর্বে খেলতে নামার কথা ছিল, তাঁদের প্রত্যেকে পাবেন ১৫ হাজার ৬০০ মার্কিন ডলার করে। ডাবলসে যে ১২০ জন খেলোয়াড়ের অংশ নেওয়ার কথা ছিল, তাঁদের প্রত্যেককে দেওয়া হবে ৭ হাজার ৮০০ মার্কিন ডলার করে। অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছে হুইল চেয়ার ইভেন্টের তারকাদের জন্যও।

আরও পড়ুনঃরোনাল্ডো জোড়া গোলে হার এড়ালো জুভেন্তাস

আরও পড়ুনঃচেলসির হারে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের যোগ্যতা অর্জনে নতুন সমীকরণ

অল ইংল্যান্ড ক্লাবের চিফ এক্সিকিউটিভ রিচার্ড লুইস বলেন, 'টুর্নামেন্ট বাতিল হওয়ার পরেই আমরা তাঁদের কথা ভাবতে শুরু করি, যাঁরা আমাদের টুর্নামেন্ট সফল করে তোলেন। আমরা খুশি যে, টুর্নামেন্টের বীমার জন্যই সারা বছর পরিশ্রম করা খেলোয়াড়দের হাতে আর্থিক পুরস্কার তুলে দিতে পারছি।' ফলে টুর্নামেন্ট না হওয়ার আক্ষেপ যেমন রয়েছে সমস্ত প্লেয়ারদের মধ্যে, তেমনই উইম্বলডনের এই সিদ্ধান্ত কুর্নিশ ও স্বাগত জানিয়েছেন সকলে। কিছুটা হলেও খুশি প্লেয়াররা। আগামী মরসুমে ফের কোর্ট কাঁপানোর জন্য তৈরী হচ্ছেন সকলে।