চলে গেলেন ইতালিয়ান স্থপতি ভিত্তরিও গ্রেগত্তি। নামজাদা এই স্থপতি নিজের জীবনকালে বানিয়ে গেছেন অনেক নামকরা স্থাপত্য। তার জীবনের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য কাজটি তিনি করেছিলেন ১৯৯২ তে। ওই বছরই তার নকশা অনুসারে বার্সালোনা সামার অলিম্পিক স্টেডিয়ামের কাজ সম্পূর্ণ হয়েছিল। সারা বিশ্বে তার এই কাজ সমাদৃতও হয়েছে। তথ্য অনুযায়ী তিনি সম্প্রতি আক্রান্ত হয়েছিলেন করোনা ভাইরাসে। সেই মারণ ভাইরাসের কবলে পরেই রবিবার ৯২ বছর বয়সে চিরঘুমের দেশে চলে গেলেন গ্রেগত্তি। 

আরও পড়ুনঃকিবু না হাবাস, পরের মরসুমে কে ধরবেন পাল তোলা নৌকার হাল

ইতালিয়ান মিডিয়ার সূত্রানুসারে জানা গিয়েছে যে করোনা ভাইরাসের কবলে পড়াতেই তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও তার মৃত্যু হয়েছে মূলত নিউমোনিয়ায় ভুগে। মিলানের একটি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন তিনি। গ্রেগত্তির স্ত্রী মারিয়ানা মাজ্জা-ও বর্তমানে মিলানের হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। যদিও তার রোগটি ঠিক কি কিংবা কেন হটাৎ তাকেও হাসপাতালে ভর্তি করা হল সেই নিয়ে বিস্তারিত কোনও তথ্য জোগাড় করা সম্ভব হয়নি। 

আরও পড়ুনঃকরোনা আতঙ্কে স্বেচ্ছা আইসোলেশনে বিশ্বনাথন আনন্দ, জার্মানিতে আটকে রয়েছেন ৫ বারের বিশ্বজয়ী

গ্রেগত্তি-র সমসাময়িক আর এক ইতালিয়ান স্থপতি স্তেফানো বোয়েরী তার মৃত্যুর জন্য সমবেদনা জানিয়ে একটি অনুশোচনামূলক বার্তা ফেসবুকে পোস্ট করেছেন। সেখানে তিনি বলেছেন, স্থাপত্যের দুনিয়ার একজন কিংবদন্তিকে হারিয়েছে বিশ্ব যিনি তার কাজের মাধ্যমে গল্প লিখে সেদেশের সংস্কৃতির। এই ঘটনাকে তিনি অত্যন্ত দুঃখজনক বলেও মন্তব্য করেছেন। মিলানের আর্কিমবলডি অপেরা থিয়েটারও ছিল গ্রেগরিরই মস্তিষ্ক প্রসূত। 

আরও পড়ুনঃচেন্নাইয়ের মানুষের মধ্যে সচেতনতার অভাব রয়েছে, করোনা ভাইরাস প্রসঙ্গে জানালেন অশ্বিন

সারা পৃথিবী জুড়ে প্রায় ৫০০০ এরও বেশি মানুষ করোনা ভাইরাসের কবলে পড়ে প্রাণ হারিয়েছেন। শুধুমাত্র ইউরোপ জুড়েই প্রায় ২১,০০০ মানুষ এই ভাইরাসে আক্রান্ত। শনিবার অবধি আসা খবর অনুসারে ইউরোপে মৃতের সংখ্যা ১৪৪১।