যাওয়ার আগে রীতিমত ভয় ধরানো বার্তা দিয়ে গেলেন বিদায়ী মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের জাতীয় গোয়েন্দা পরিচালক জন ব়্যাটক্লিফ। ওয়াল স্ট্রিট জার্নালে লেখা একটি প্রবন্ধে তিনি বলেছেন দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধের পর চিনা সেনা গোটা বিশ্বের কাছে ত্রাসে পরিণত হচ্ছে। কারণ জৈবিকভাবে দক্ষতা সম্পন্ন সেনাবাহিনী তৈরি করতে উদ্যোগী হয়েছে বেজিং। চিনা কর্তৃপক্ষ সেনা বাহিনীর সদস্যদের ওপর মানবিক পরীক্ষা করছে বলেও তিনি দাবি করেছেন। বিদায়ী ট্রাম্প প্রশাসনের তরফ থেকে এটাই ছিল চিন নিয়ে শেষ বার্তা। 

ব়্যাটক্লিফ বলেছেন,  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ভোট গ্রহণ শেষ হয়েছে। এখন আর কোনও রাজনীতি নয়। কিন্তু চিন যে আশঙ্কা বাড়িয়ে তুলছে সেবিষয়ে সাবধান করতেই তিনি এজাতীয় মন্তব্য করছেন বলেও জানিয়েছেন। তিনি আরও বলেন, চিন আর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কাছে সবথেকে বড় হুমকি। তবে শুধু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওপরও দৃষ্টি সীমাবদ্ধ রাখেনি চিন। বর্তমানে বিশ্বব্যাপী গণতন্ত্র ও স্বাধীনতার ওপর একটি বড় আশঙ্কার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে শি জিংপিং প্রশাসন। তিনি বলেন, চিনের প্রতি কড়া নজরদারী রাখার জন্য ফেডারাল বাজেটের ৪৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বরাদ্দ করা হয়েছিল। কিন্ত এখন তা সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। তিনি আরও বলেন চিন গুপ্তচরবৃত্তি বাড়িয়েছে। চিনা সংস্থার আমেরিকার প্রযুক্তি চুরি করছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। যদিও চিনা বিদেশ মন্ত্রক এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে।

ভারতরে মধু-চক্রেও জড়িয়ে রয়েছে চিনের হাত, তদন্তে নেমে চোখ কপালে উঠেছে আধিকারিকদের ..

২৭ বছর লাগল জন্ম নিতে , বিশ্বের সবথেকে দীর্ঘস্থায়ী ভ্রুনের সন্তান হল মলি ...

 সিঙ্গুর আন্দোলনের দিনেই আন্দোলনকারী কৃষকদের সঙ্গে কথা, মোদীর সমালোনচনায় সরব মমতা ...

ব়্যাটক্লিফের কথায় শি জিংপিং প্রশাসন আগ্রাসী সামরিক বাহিনী তৈরি করবে বদ্ধপরিকর। পাশাপাশি আধিনিকিকরণেরও পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। আর সেই কারণেই চিন মার্কিন প্রতিরক্ষা প্রযুক্তি চুরি করেছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। অন্যবারের মত এবারও চিন ব়্যাটক্লিফের বয়ান ফিরিয়ে নেওয়ার আবেদন জানিয়েছেন। তবে পাল্টা কোনও উত্তর না দিয়ে ব়্যাটক্লিফ বলেছেন, নির্বাচন শেষ এখন গোটা দেশের শুভবুদ্ধি সম্পন্ন মানুষদের চিন ইস্যুতে চিন্তাভাবনা করার প্রয়োজন রয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।