দিন দুই আগেই ইসরো তথ্য বিশ্লেষণ করে জানিয়েছিল, শেষ ২.১ কিলোমিটার অবতরণের সময় আচমকাই ডিগবাজি খেয়েছিল ল্যান্ডার বিক্রম। আর তাতেই তার মাথা চন্দ্রপৃষ্ঠের দিকে ঘুরে গিয়েছিল এবং যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় ইসরোর সঙ্গে। এইবার আরও তথ্য আসতে চলেছে ল্যান্ডার বিক্রম সম্পর্কে। আর সেই তথ্য দিচ্ছে মার্কিন মহাকাশ চর্চা কেন্দ্র নাসা।

ভারতের চন্দ্রযান ২ অরবাইটর যেমন চাঁদের আশপাশে ঘুরছে, তেমনই এই মুহূর্তে চাঁদকে প্রদক্ষিণ করছে নাসার 'লুনার রিকনসিন্স অরবাইটর'-ও। মার্কিন সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী 'লুনার রিকনসিন্স অরবাইটর' বা এলআরও, বিক্রমের ছবি তুলে ও আরও অন্যান্য তথ্য সংগ্রহ করে দেবে ইসরো-কে।

আরও পড়ুন - ইসরোর চন্দ্রাভিযান তাঁদের কাছে অনুপ্রেরণা, ভবিষ্যতে একসঙ্গে কাজ করার বার্তা দিল নাসা

আরো পড়ুন -দেখা পেলেও বিক্রমের সাড়া পাচ্ছে না ইসরো, এবার ল্যান্ডারকে 'হ্যালো' মেসেজ পাঠাল নাসার অ্যান্টেনা

আরো পড়ুন - মোদী পা রাখতেই দুর্ভাগ্যে ছেয়ে গেল ইসরো, ফের শিরোনামে কুমারস্বামী, মোক্ষম জবাব বিজেপির

আরো পড়ুন - চন্দ্রযানেও আছি, চন্দ্রদেবেও আছি, এবার বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য শুরু হল পুজো-আচ্চা

'লুনার রিকনসিন্স অরবাইটর' প্রকল্পের সঙ্গে যুক্ত থাকা বিজ্ঞানী নোয়া পেত্রো বলেছেন, চন্দ্রযান ২-এর ল্যান্ডার বিক্রমের যেখানে নামার কথা ছিল সেই স্থানের উপর দিয়েই মঙ্গলবার উড়ে যাবে তাদের এলআরও। উড়ে যাওয়ার আগের ও পরের সময়ে ওই এলাকার যে ছবি উঠবে তা পাঠানো হবে ইসরোর বিজ্ঞানীদের কাছে। নবাসা মনে করছে সেই ছবি ও অন্যান্য সংগৃহিত তথ্য বিশ্লেষণ করে ইসরো বিক্রমের সফট ল্যান্ডিং ব্যর্থ হওয়ার কারণ আরও ভালভাবে বুঝতে পারবেন। এর আগেই নাসা জানিয়েছইল, ভবিষ্যে তারা ইসরোর সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করতে আগ্রহী।  

তবে শুধু নাসাই নয়, ইসরো-র প্রতি সমর্থন ও আস্থা প্রকাশ করেছে জাপানও। সেই দেশের দূতাবাস থেকে বলা হয়েছে, একটি সফট ল্যান্ডিং-এর ব্যর্থতায় ইসরো আটকে যাবে না বলেই তাদের বিশ্বাস, বরং চন্দ্রাভিযানে ইসরো আগের মতোই অবদান রেখে যাবে। আর তাতে গর্বের সঙ্গে সঙ্গী হতে চায় জাপান। আগেই জানা গিয়েছিল ইসরোর পরের চন্দ্রাভিযান হবে জাপানের মহাকাশ চর্চা কেন্দ্র জাক্সার সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে।