শনিবার ব্যাটলগ্রাউন্ড স্টেট পেনসিলভেনিয়ার জয়ের পরই আমেরিকার পরবর্তী প্রেসিডেন্ট হিসাবে ঘোষণা করা হয়েছে জো বাইডেন-এর নাম। কিন্তু জয়ের খবর যখন এসেছিল, তখন কোথায় কী করছিলেন তিনি? সোশ্যাল মিডিয়ায় যুগে কিছুই আজকাল গোপন থাকে না। জয়ের পরের মুহূর্তের বাইডেনের ছবিও, তাঁর নাতনি নাওমি সোশ্যাল মিডিয়ায় দিয়ে দিয়েছেন। সেই সময় ডোনাল্ড ট্রাম্প অবশ্য জনসমক্ষেই ছিলেন।  

জো বাইডেনের বড় নাতনি নাওমি বাইডেনের করা টুইটে দেখা গিয়েছে জো, জয়ের পরের মুহূর্তটা উদযাপন করেছেন পরিবারের সঙ্গে। নির্ভেজাল আনন্দ এবং পারিবারিক উদযাপনের ছবিই ধরা পড়েছে। নাওমির তোলা ছবিতে দেখা যাচ্ছে পরিবারের সদস্যরা জো বাইডেনকে জড়িয়ে ধরেছেন, আর ভাবি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ক্যামেরার দিকে তাকিয়ে হাসছেন। কোনও আস্ফালন নয়, নাওমি ছবিটি পোস্ট করে ক্যাপশনে শুধু '১১.৭.২০২০' এই তারিখটি যুক্ত করেছেন।

জো বাইডেনের পুত্র হান্টার এবং তার প্রথম স্ত্রী ক্যাথলিনের মেয়ে নাওমি, জো বাইডেনের বড় আদরের। বর্তমানে ২৭ বছর বয়সী নাওমি-র নাম রাখা হয়েছিল, হান্টার বাইডেনের বোন নাওমি ক্রিস্টিনার নামানুসারে। ১৯৭১ সালে বাইডেনের এই কন্যা তাঁর প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে গাড়ি দুর্ঘটনায় মারা গিয়েছিলেন।

এদিকে বাইডেন যখন তাঁর পরিবারের সঙ্গে জয় উদযাপন করছেন, তখন বর্তমান প্রেসিডেন্ট তথা পরাজিত প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প কোথায়? তখন তিনি পোর্টোম্যাক নদী পেরিয়ে ভার্জিনিয়ার স্টার্লিংয়ের ট্রাম্প ন্যাশনাল গল্ফ কোর্সে। শুক্রবার রাতেই জয়ের দোরগোরায় পৌঁছে গিয়েছিলেন বাইডেন। পেনসিলভেনিয়া এবং আরও কয়েকটি রাজ্যের মহা গুরুত্বপূর্ণ ভোটের শেষদিকের ফলগুলি যত প্রকাশিত হচ্ছিল ততই দেওয়ালের লিখন স্পষ্ট হচ্ছিল। এই অবস্থায় শনিবার সকাল সকালই হোয়াইট হাউস ছেড়ে গল্ফ কোর্সে রওনা দিয়েছিলেন ট্রাম্প।

যখন মার্কিন সংবাদমাধ্যমে পেনসিলভেনিয়া-র ফল জানানো হয়, জানানো হয় ট্রাম্পকে সরিয়ে আগামী জানুয়ারিতে  হোয়াইট হাউসে প্রবেশ করতে চলেছেন বাইডেন, তখনও ট্রাম্প গল্ফ খেলছেন। যখন তাঁর অফিস থেকে এই ফলকে অস্বীকার করে বাইডেন-কে 'ভুয়ো বিজয়ী' বলা হচ্ছে, তখনও তিনি গল্ফ কোর্সেই। বিকেলে য়খন নিউইয়র্কের টাইমস স্কোয়ারের নেচে গেয়ে শ্যাম্পেন খুলে আনন্দ করছেন বাইডেন সমর্থকরা, তখন তিনি গল্ফ কোর্স থেকে ফেরেন হোয়াইট হাউসে। সারাদিন খেলে জিতলেন না হারলেন, তা কিন্তু জানা যায়নি।