নাড্ডার সফরে লিগামেন্ট ছিড়ে যাওয়ার পর কলকাতায় এসেই  'মমতার ভাইপো'কে একহাত নিলেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়। এখন আর বেশি বঙ্গ স্টাইলের হিন্দি শুনে বুঝতে কষ্ট হয় না।   কারণ ওই যে ভোট পরীক্ষায় জিততে বাংলা ভাষা সিলেবাসে আছে। কলকাতা বিমানবন্দরে সাংবাদিকের বাংলা মেশানো হিন্দিতে 'আসানসোলের মেয়র জিতেন্দ্রে'-র চিঠি প্রসঙ্গ উঠতেই  'মমতার ভাইপো'কে একের পর এক এমন আক্রমণ করলেন, তা সামলাতে সময় লাগবে তৃণমূল শিবিরের।

আরও পড়ুন, 'জিতেন মনে হয় গ্য়াস খেয়ে লিখেছে', আসানসোলের মেয়রের পত্র বোমায় বিস্ফোরক ফিরহাদ

 

 

 

 'উন্নয়নমূলক কাজ হলেই কাটমানি চাই', বলেন কৈলাস

কলকাতা বিমানবন্দরে নেমে সাংবাদিকের মুখে  আসানসোলের মেয়র জিতেন্দ্রের চিঠি  প্রসঙ্গ উঠতেই আর দু সেকেন্ডও জিরিয়ে নেননি কৈলাশ। তিনি বলেন, দেখুন এখানে মমতাজির কর্তৃত্ব চলে কিংবা ভাইপোর কর্তৃত্ব চলে। সরকারের দুটি কেন্দ্রবিন্দু আছে। একদিকে সরকারের পরিষ্কার ছবি দেখে আমজনতা। অপরদিকে গলা অবধি ডুবে থাকে ভ্রষ্টাচারে। মমতাজির ছবি এখানে পরিষ্কার দেখা যাচ্ছে। কিন্তু ওনার ভাইপো যিনি কিনা পুরোপুরি ভ্রষ্টাচারে ডুবে আছেন। এই রাজ্যে কোনও উন্নয়নমূলক  কাজ হতে চাইলেই ওদের কাটমানি চাই। তাই বাংলার কোনও মেয়র,মন্ত্রী  উন্নয়নমূলক  কাজ করতে পারবেন না, যতোক্ষণ না মমতাজির ভাইপোকে কমিশন না দেওয়া হবে।' যদিও এখনও এই বিষয়ে প্রতিক্রিয়া দেননি  অভিষেক বন্দ্য়োপাধ্যায়।

 

আরও পড়ুন, নির্বাচনের দিন ঘোষণার আগেই মমতার পুলিশকে ধরে টানাটানি কেন্দ্রের, কোন এক্তিয়ারে এমন নির্দেশ, জানুন

 

 

 

আরও পড়ুন, 'রাজ্যে নারী নিরাপত্তা নেই', ভোটের আগে সরব জাতীয় মহিলা কমিশন

 

 চিঠিতে ঠিক কী লিখেছিলেন আসানসোলের মেয়র জিতেন্দ্র 

প্রসঙ্গত, কেন্দ্রীয় প্রকল্পের টাকা কি কারণে আসানসোল মিউনিসিপ্যালিটি কর্পোরেশনকে দেওয়া হচ্ছে না, তাই নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করলেন আসানসোলের মেয়র জিতেন্দ্র তিওয়ারি। রাজ্যের পুর ও নগর উন্নয়নমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমকে চিঠি পাঠিয়ে কেন্দ্রীয় প্রকল্পের টাকা দ্রুত দেওয়ার আবেদন করেছেন তিনি। স্মার্ট সিটি প্রকল্পের ২০০০ কোটি টাকা বাকি আছে বলে দাবি করেন জিতেন্দ্র। একই সঙ্গে তিনি জানান, 'এই প্রকল্পের টাকা না আসার কারণে আসানসোলের স্মার্ট সিটি প্রকল্পের কাজ থমকে যাচ্ছে। কেবল তাই নয়, কঠিন বর্জ্য নিষ্কাশন প্রকল্পে কেন্দ্রের ১,৫০০ কোটি টাকা আটকে রয়েছে', বলে ফিরহাদ হাকিমকে চিঠিতে জানান জিতেন্দ্র তিওয়ারি। 

 

 

হামলার পরে কলকাতায় ফিরতেই এবার বুলেটপ্রুফ গাড়ি পেলেন কৈলাস

 নাড্ডার সফরে হামলার পর বাঁ হাতের  লিগামেন্ট ছিড়েছে  কৈলাস বিজয়বর্গীয়ের। হামলার পরে এটাই তাঁর কলকাতায় প্রথম সফর। এবার তাঁকে বুলেটপ্রুফ গাড়ি দেওয়া হয়েছে। এই প্রসঙ্গে তিনি কৈলাশ জানান,'স্বরাষ্টমন্ত্রী থেকে আদেশ এসেছে, যে বুলেট প্রুফ গাড়ি আমায় ভ্রমণ করতে হবে। সাধারণ গাড়িতে আর যাওয়া যাবে না।' এর পরে তিনি আরও বলেন বাংলায় নিরাপত্তা নেই। এখানে আমজনতা সুরক্ষিত নয়। মমতাজি এবং ভাইপোর ইশারায়, আমাদের কার্যকর্তাদের প্রতিদিন এখানে মৃত্যু হচ্ছে', অভিযোগ এনে এগোলেন যাত্রা পথে।