আবারও দল ছাড়লেন বিজেপি নেতা শোভন চট্টোপাধ্যায়। রবিবার সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমত বিস্ফোরক ছিলেন তাঁর বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। জানালেন আর নয় বিজেপি। সূত্রের খবর দল ছাড়ার সিদ্ধান্তের কথা তাঁরা জানিয়ে দিয়েছেন শীর্ষ নেতৃত্বকে। একই সঙ্গে জুটি বেঁধেই তাঁরা দল ছাড়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন বলেও জানিয়েছেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। সংবাদ সংস্থা এইএনআই সূত্রের খবর বেহালা পূর্ব কেন্দ্রে প্রার্থী করা হয়নি শোভন চট্টোপাধ্যায়কে। তাতেই তাঁরা দল ছেড়েছেন। 

 

রবিবার তৃতীয় ও চতুর্থ পর্বের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করেছে বিজেপি। সেখানে বেহালা পূর্ব প্রার্থী করা হয়েছে সদ্যো বিজেপিতে যোগ দেওয়া অভিনেত্রী পায়েল সরকারকে। অথচ এই কেন্দ্রটিতে দীর্ঘ দিন ধরেই জিতে আসছেন শোভন চট্টোপাধঅযায়। সূত্রের খবর দিল্লীর শীর্ষ নেতৃত্বের কাছে তিনি বেহালা পূর্বের প্রার্থী হওয়ার আবেদন জানিয়েছিলেন। সূত্রের খবর, বিজেপি তাঁকে বেহালা পশ্চিমে তৃণমূল প্রার্থী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে দাঁড়করাতে চেয়েছিল। আর সেই কারণেই অভিমানে তিনি বান্ধবী বৈশাখীর হাত ধরেই দল ছাড়লেন বলেও সূত্রের খবর। সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের সঙ্গে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের ছবি পোস্ট করে বৈশাখী ইংরাজিতে লিখেছেন 'তুমি সবর্দা আমার বিগ্রহ। আজ যেভাবে অসম্মান করা হল সেটা আমাদের স্পিরিট নষ্ট করে দিতে পারবে না।' তিনি আরও বলেছেন তাঁরা লড়াইয়ের মধ্যে দিয়ে ফিরে আসবেন। চক্রান্ত বেশিদিন স্থায়ী হয় না। 

বেহালা পূর্ব কেন্দ্রে এবার তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী করেছে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্য়ায়। নিজের স্ত্রীর বিরুদ্ধেই ভোট যুদ্ধে সামিল হতে চেয়েছিলেন শোভন। কিন্তু বিজেপি তাঁকে সে সুযোগ না দিয়ে রত্নার বিরুদ্ধে প্রার্থী করে অভিনেত্রী পায়েল সরকারকে। তাকেই ক্ষোভ প্রকাশ করেন শোভন। যদিও এক বছররেও বেশি সময় আগে তিনি ও বৈশাখী চট্টোপাধ্যায় দিল্লিতে গিয়ে বিজেপিতে যোগদান করেছিলেন। তারপর দীর্ঘ দিনই হাত গুটিয়ে বসেছিলেন। গেরুয়া শিবিরের তেমন কোনও রাজনৈতিক কর্মসূচিতে শোভন ও বৈশাখীতে দেখা যায়নি। সংবাদ সংস্থা এএনআই সূত্রের খবর শোভন চট্টোপাধ্যায় ইস্তফা পত্রে লিখেছেন, তাঁকে শিবপ্রকাশ জি জানিয়েছেন বেহালা পশ্চিম কেন্দ্রের প্রার্থী করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে দল। টিকিট দেওয়া হবে না বৈশাখীকেও।