'খুনের রাজনীতি করে ওরা', তৃণমূলকে তীব্র আক্রমণ দিলীপের। একদিকে যখন প্রথম দফা ভোটে কেশপুরে বিজেপি কর্মীর রক্তের দাগ এখন তাজা। তখন তার মধ্যে এদিন ফের দ্বিতীয় দফার ভোটে নন্দীগ্রামে ফের উদ্ধার আরও এক বিজেপি কর্মীর দেহ। আর চুপ করে থাকতে পারলেন না বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তৃণমূলের সরকারকে কড়া প্রতিক্রিয়া দিলেন তিনি।  

আরও 'তৃণমূলের হুমকি'-র ভয়ে ভোটের সকালেই 'আত্মহত্যা' BJP কর্মীর, তীব্র উত্তেজনা নন্দীগ্রামে 

 

 


বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেছেন,' আজ ইলেকশন অনেক ভাল হবে। প্রথম দফায় অনেক শান্তিতে ভোট হয়েছে। মানুষ নির্বিঘ্নে ভোট দিয়েছেন। চ্যালেঞ্জ নিয়ে মানুষ সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ভোট দেবে। সকাল থেকে ব্যাপক ভিড় দুপুরের পরে ভোট হয়ে গেছে। কেশপুরের খুন নিয়ে এদিন দিলীপ ঘোষ বলেছেন, গত তিন দিনে আমাদের তিন জন কর্মকর্তা খুন হয়েছে। খুন আমরা করিনা। খুনের রাজনীতি ওরা করে। বিজেপি করে না। প্রসঙ্গত, প্রথম দফা নির্বাচনের আগেও রক্তাক্ত হয়েছিল কেশপুর। তখন এক বিজেপি কর্মী খুনের ঘটনা সামনে উঠে এসেছিল। এদিকে এদিন ফের দ্বিতীয় দফার ভোটে নন্দীগ্রামে ফের উদ্ধার হয়েছে আরও এক বিজেপি কর্মীর দেহ। 

 

আরও পড়ুন, দ্বিতীয় দফার শুরুতেই রক্তাক্ত কেশপুর-বোমাবাজি সোনাচূড়ায়, ভোট দিতে বাধা কোন কোন বুথে 

 

 

উল্লেখ্য, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন,' ভোটের পরে পুলিশ তাঁর।'সেই প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ বলেছেন, উনি বরাবরই একই ধরনের। ধমকি দিয়ে আসেন ,ভয় দেখান। উনি এখন জানেন ওনার হয়ে আর, পুলিশ নেই। অতএব ওই জন্য এমনি ভয় পাচ্ছেন। 'বিভিন্ন জায়গা থেকে বহিরাগত গুন্ডারা ঢুকছে'- এ নিয়ে বারবার অভিযোগ উঠেছে গেরুয়া শিবিরে। এদিন দিলীপ ঘোষ এ প্রসঙ্গে বলেছেন,  আমাদের আগেই অভিযোগ করা উচিত ছিল। এটা নির্বাচন কমিশন দেখবে।ভারতীয় জনতা পার্টির কর্মী রাস্তায় আছে। তাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভয় পেয়ে, এই সব অভিযোগ করছেন।'