'ভেকধারী সরকারের ফেকধারী বাজেট', উত্তরবঙ্গ সফরে এসেই কেন্দ্রকে আক্রমণ করলেন মমতা। সোমবারই ইউনিয়ন বাজেট পেশ করেছেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামণ। দেশ তো বটেই, রাজ্য়ের বরাদ্দ বাজেট এবং পরিকল্পনা নিয়ে বেজায় চটলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়।  

 

 

আরও পড়ুন, বাজেটে কী কী পেল পশ্চিমবঙ্গ, জানালেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামণ  

 

এদিন উত্তরবঙ্গ সফরে এসে মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায় বলেন, আবার পেট্রোলের দাম বাড়বে, তৈরি থাকুন। রোজ রোজ জ্বালানির দাম বাড়া মানে রান্নাঘরে আগুন লাগানো। পেট্রোল-ডিজেলে আবার সেস বসিয়েছে। এই সেসই একেবারে শেষ করে দেবে। সেসের টাকা কিন্তু রাজ্য সরকার পায় না। ওটাও নীলকরের মতো দিল্লি তুলে নিয়ে যায়।  এরপর তিনি বলেন, এই সরকার সব বিক্রি করেছে। রেল, বিএসএনএল, এয়ারইন্ডিয়া বিক্রি সহ সব রাষ্ট্রয়ত্ত সংস্থার কথাও উল্লেখ করে সাবধান হতে বলেন রাজ্যবাসীকে। বিমার টাকা পাবেন তো বলে প্রশ্ন তোলেন মমতা। তিনি সতর্কবার্তা জানিয়ে বলেন, 'এই সরকারের কোনও তথ্য় বিশ্বাসযোগ্য নয়। এটা হল ভেকধারী সরকারের ফেকধারী বাজেট।'

আরও পড়ুন, স্বাস্থ্য খরচ বাড়ল প্রায় ১৩৫ শতাংশ, ভাইরাস তাড়াতে এবার বড়সড় বাজেট ভারতে 

 

 

অপরদিকে মমতা তোলেন লকডাউনে পরিযায়ী শ্রমিক প্রসঙ্গ। তিনি বলেন, আমরা কিন্তু সবাই  পরিযায়ী শ্রমিকের জন্য ট্রেনের টিকিটের দাম দিয়েছিলাম। কেন্দ্রীয় সরকার কিন্তু দেয়নি। এদিকে শারদা-নারদায় যুক্ত থাকা নেতা-কর্মীদের চাটার্ড বিমানে করে দিল্লি নিয়ে গিয়েছে বলে খোঁচা দেন মমতা। এদিকে যারা চাটার্ড বিমানে সদ্য বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন তারা তৃণমূলেরই প্রাণ ছিল দুদিন আগেও। দল ছাড়তে শারদা-নারদা কেলেঙ্কারির তকমা জুটল এবার তাঁদের। তবে এদিন বাজেট শুনে রাজ্যবাসী খুশি হোক না হোক ভোটের আগে যে চাপের মুখে ঘাসফুল শিবির, তা তৃণমূল সুপ্রিমোর প্রতিক্রিয়ায় স্পষ্ট বোঝা গেল বলে মত রাজনৈতিক মহলের।