'মমতার মুখের ভাষাই তাঁর মানসিকতা পরিচয় দেয়'  সফরের শেষদিনে ডায়মন্ডহারবারের তিক্ত অভিজ্ঞতা  শেষে জেপি নাড্ডা এমনটাই দিয়ে গেলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে। যদিও মুখ্যমন্ত্রীও ছেড়ে কথা বলেননি।  'নাড্ডা-ফাড্ডা-ভাড্ডা'-যখন তখন যে কেউ আসছে বাংলায়, বরাবরের মতোই আক্রমণ করেন মমতাও।

আরও পড়ুন, 'জয় শ্রীরাম শুনলেই শরীর খারাপ হয়ে যাচ্ছে', মমতাকে তোপ দিলীপের

 

 'মমতার মুখের ভাষাই তাঁর মানসিকতা পরিচয় দেয়'

কলকাতার মেয়ো রোডে তৃণমূলের কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবিতে তৈরি ধরনা মঞ্চে মমতা বলেন, 'কোনও দিন চিফ মিনিষ্টার চলে আসছে,কোনও দিন হোম মিনিষ্টার চলে আসছে। কোনওদিন আবার ফাড্ডা,গাড্ডা আবার কোনওদিন ভাড্ডাও চলে আসছে। একা প্রোগ্রাম করবে, কেউ আর করবে না। আর যেদিন করবে, লোক যদি না আসে তাহলে নিজে সাজিয়ে রাখবে কী করে ন্যাশনাল নিউজে ভাল করে দেখায়, যে দেখো আমায় মেরেছে।'  'মমতার মুখের ভাষাই তাঁর মানসিকতা পরিচয় দেয়' বাংলায় এসে  ক্ষেপে এমনটাই বলে বিদায় নিলেন নাড্ডা।

 

 

আরও পড়ুন, 'ছিঃ- দেশের একমাত্র মহিলা মুখ্যমন্ত্রীকে গালাগালি', দিলীপকে তিরষ্কার মিমির

 

'বাংলার সমৃদ্ধ সংষ্কৃতি রসাতলে গিয়েছে'


প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার ডায়মন্ড হারবারে যাওয়ার পথে একাধিক শীর্ষ বিজেপি নেতার গাড়িতে হামলা হয়। কৈলাশ বিজয়বর্গীয়, অনুপম হাজরার গাড়িতে ইট ছুঁড়ে ভাঙচুর, এবং জেপি নাড্ডার গাড়িতেও পাথর বৃষ্টি করা হয়। কাচে বোতল ছুঁড়েও আক্রমণ করা হয়েছে। অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে। এরপরেই বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি  জেপি নাড্ডা আরও বলেন, মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়ের শাসনামলে বাংলার সমৃদ্ধ সংষ্কৃতি রসাতলে গিয়েছে। মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়ের মুখে ভাষায় ওর মানসিকতার পরিচয় দেয়। আমি শুনলাম উনি আমাকে অনেক নাম দিয়েছেন। মমতাজি, এটাই বলে দেয় আপনি কোনও সংষ্কৃতিকে লালন করেন। এটা বাংলার সংষ্কৃতি নয়।'

 

আরও পড়ুন, মন টানছে মাইথনে, আজই বেরিয়ে পড়ুন, রইল কলকাতার কাছেই ঘুরতে যাওয়ার নতুন ৫ ঠিকানা