২০২১ বিধানসভা নির্বাচনে একাধিক হিংসার খবর উঠে আসতে দেখা যাচ্ছে প্রথম দফা থেকেই। বিজেপি কর্মী খুন থেকে শুরু করে রাতভোর গুলি বাজি, একই ছবি পুনরাবৃত্তি ঘটল দ্বিতীয় দফার নির্বাচনে। এবার খুন তৃণমূলের কর্মী, আবারও খারাপ ইভিএম। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই নানা জায়গা থেকে উঠে আসে বিক্ষোভের ছবি। এই দিনই মুখ্যমন্ত্রীর ভাগ্য নির্ধারণ নন্দীগ্রামে।

আরও পড়ুন- ভোটের শুরুতেই রক্তাক্ত কেশপুর-বোমাবাজি সোনাচূড়ায়, ভোট দিতে বাধা কোন কোন বুথে 

নন্দীগ্রাম সহ মোট ৩০ টি আসনে ভোটগ্রহণ পয়লা এপ্রিল। যার মধ্যে ৭৫ শতাংশই স্পর্শকাতর, ফলে  এলাকা কড়া নিরাপত্তায় ঢেকে ফেলা হয়েছে এমনটাই দাবি করেছেন নির্বাচন কমিশন। তবে সকাল হতেই যে ছবি সামনে উঠে আসলো, তার সম্পূর্ণ উল্টো। বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভ ছবি, সেই একই সুর শোনা গেল বিজেপির প্রার্থী হিরণ চট্টোপাধ্যায়ের মুখে। এদিন সকালে দুর্গা মন্দিরে পুজো দিয়ে এলাকা পরিদর্শনে বেরন হিরণ।

আরও পড়ুন- প্রথম বাংলায় ফিল্ম ফেয়ার, সৃজিত একাই ঘরে আনলেন আট অ্যাওয়ার্ড

পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে তিনি অভিযোগ আনেন, সারারাত ধরে চলছে অশান্তি, লোডশেডিং করে দিয়েন ভয় দেখানো হয়েছে ভোটারদের। বিভিন্ন স্থানে বোমাবাজি ও চলেছে। তবে তার যোগ্য জবাব দিচ্ছে স্থানীয় মানুষের। সকাল সকাল লম্বা লাইনে উপস্থিত হয়ে নিজের ভোট দিতে তৎপর সকলেই। এভাবে আটকানো যায় না, জানালেন হিরণ। এদিকে এদিন বুথের ১০০ মিটারের মধ্যে দলীয় লোগো লাগিয়ে প্রবেশ করেছেন হিরন। এমনই অভিযোগ উঠল এবার তারকা প্রার্থীর বিরুদ্ধে।