রবিবার বাঁকুড়ায় জনসভা থেকে তৃণমূল কংগ্রেস ও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তৃণমূলের দেওয়াল লিখন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। তারপরের দিনই সেই জেলাতেই ভোট প্রচারে গিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর সেই কারণে মমতার বাঁকুড়ার জনসভার দিকে বিশেষ নজর ছিল রাজনৈতিক মহলের । অনেকেরই ধারণা ছিল  সোমবার বাঁকুড়ার জনসভা থেকে তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী চড়া সুরেই আক্রমণ করবেন বিজেপিকে। আর হোলও তাই। 

 

এদিন জনসভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যবাসীকে বিজেপি সম্পর্কে সতর্ক করে বলেন কোনও রকম প্ররোচনায় পা দেবেন না। বিজেপি দাঙ্গা বাঁধানোর চেষ্টা করবে। বিজেপি সরকার তৈরি করলে রাজ্যবাসীকে চরম দূর্দশায় পড়তে হবে বলেও মনে করেন তিনি। আর সেই কারণ দেখিয়েই তাঁকে ভোট দেওয়ার আর্জি জানান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন,  আজ ব্যাঙ্কে টাকা রেখেও মানুষ নিশ্চিন নয় বলেও অভিযোগ করেন মমতা । তিনি বলেন যেকোনও সময়ই ব্যাঙ্ক বন্ধ করে দিতে টাকা ফিরত নাও দিতে পারে বিজেপি। এদিনও ইভিএম নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করেন মমতা। তিনি ববেন ভোটিং মেশিন খারাপ হলেও ভোট দেওয়ার জন্য অপেক্ষা করার আবেদন জানিয়েছেন। একই সঙ্গে মমাত বলেন তাঁরা ফের নীল বাড়ির দখল নিলে রাজ্যের কোনও মানুষকেই ভোটার লিস্ট থেকে বাদ দেওয়া হবে না। 

সময় নিয়ে জল মেপে দল বদল, ব্যাথিত হৃদয়ে অবশেষে তৃণমূল ছেড়ে গেরুয়া শিবিরে শিশির .

পাঁচ রাজ্যে ভোটের মুখে মহামারির কালো ছায়া, ভারতে দ্রুতগতিতে বৃদ্ধি পাচ্ছে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ...

এদিন বাঁকুড়ায় বাম ও কংগ্রেসেরও তীব্র সমালোচন করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন কংগ্রেস ও বামেরা বিজেপির সঙ্গে ডিল করছেন।'ওদের ডিলটা খিল করে দিন।' একই সঙ্গে পুরোন দিনের বাম জমনায় সন্ত্রাসের কথা তুলেও সিপিএমের তীব্র সমালোচনা করেন তিনি। এদিনও বিজেপিকে বহিরাগত হিসেবে বর্ণনা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, বাইরে থেকে বর্গী আসছে। আর বহিরাগতদের বিরুদ্ধে মা বোনেদের জোট বাঁধার কথার বলেন মমতা। এদিন মমতাই বিজেপির ইস্তেহার প্রসঙ্গ তুলে বলেন, বিজেপি মহিলাদের জন্য ৩৩ শতাংশ সংরক্ষণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। কিন্তু তৃণমূল কংগ্রেস ইতিমধ্যেই পঞ্চায়েতে মহিলার জন্য ৫০ দিয়েছে।  তিনি এদিন স্পষ্ট করে বলেন এটা তাঁর কাছে একটা লড়াই। তিনি ভাঙবেন তবুও মচকাবেন না বলেও ইঙ্গিত দিয়েছেন। 

এদিন বাঁকুড়ার জনসভা থেকে বিজেপির ইস্তাহারের তীব্র সমালোচনা করেন। একই সঙ্গে তাঁর সরকারের উন্নয়নমূলক কাজকর্মগুলিও তুলে ধরেন। তিনি বলেন বাঁকুড়াতে ৫৮ কোটি টাকার জল প্রকল্পের ব্যবস্থআ করা হয়েছে। আগা দিনে বাঁকুড়ার বাড়িতে বাড়িতে জল পৌঁছে দেওয়া হবে। এলার উন্নয়নে ইতিমধ্যেই অনেক কাজ হয়েছে বলেও দাবি করেন। আরও বিসে কিছু কাজ আগামী দিনে করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।