দীর্ঘ দিন ধরেই বেসুরো ছিলেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। দায়িত্বে থেকেও কাজ করতে পারছেন না, স্বাধীনতা নেই বলে একাধিকবার ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন ডোমজুড়ের বিধায়ক তথা রাজ্যের বনমন্ত্রী। দলের একাংশের বিরুদ্ধেও নাম না করে তোপ দেগেছেন রাজীব। সম্প্রতি ফেসবুক লাইভে এসেও দলের একাংশের প্রতি নিজের অভিযোগ-অভিমানের কথা বলেছিলেন তিনি। এবার সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে বনমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দিলেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়।

শুক্রবার মন্ত্রিসভা থেকে নিজের ইস্তফা দেওয়ার কথা জানান রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। ইতিমধ্যেই ইস্তফা পত্র মুখ্যমন্ত্রীর কাছে পাঠিয়ে দিয়েছেন তিনি। ইস্তফা পত্রে রাজীবন্দ্যোপাধ্যায় লিখেছেন,'মানুষের সেবা করতে দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ। বছরের পর বছর ধরে আমি আমার দায়িত্বটি পুরো দায়িত্ব এবং নিষ্ঠার সাথে করার চেষ্টা করেছি। আর তিনি দুঃখ প্রকাশ করে জানান যে , এই পদ ছাড়তে হচ্ছে তাঁকে।' রাজভবনে গিয়ে রাজ্যপালের কাছেও পদত্যাগ পত্র জমা দিয়েছেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়।

শুভেন্দু অধিকারী, লক্ষ্মীরতন শুক্লার পর এবার রাজ্যের মন্ত্রীত্ব থেকে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের ইস্তফা দেওয়ার শাসক দলের আরও অস্বস্তি আরও বাড়ল বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল। বেসুরো হওয়ার পর থেকেই রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিজেপি যোগের জল্পনা বাড়ছিল। সম্প্রতি শুভেন্দু অধিকারীও রাজীবকে সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা বলেছিলেন। শুক্রবার মন্ত্রীত্ব থেকে ইস্তফা দেওয়ার পর তিনি বিজেপিতে যোগ দিতে চান, তাহলে স্বাগত জানিয়েছেন দিলীপ ঘোষও। ফলে এবার রাজীবও ঘাসফুল ছেড়ে পদ্মফুল ধরেন কিনা, সেটাই দেখার অপেক্ষা।