আগামী সপ্তাহে অবশেষে মিছিল করতে চান শোভন-বৈশাখী। উল্লেখ্য, সোমবারের মিছিলে আসননি শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্য়োপাধ্যায়। এরপরেই মিছিল নিয়ে ফের আলোচনা হয়েছে বলে সূত্রের খবর। আগামী সপ্তাহের তাই শেষেমেষ মিছিল করতে চলেছেন শোভন-বৈশাখী।

 

আরও পড়ুন, মতুয়াদের মন রাখতে বাংলায় আসছেন অমিত শাহ, CAA নিয়ে বড় ঘোষণার সম্ভাবনা
 
 
সোমবার বিঝেপির মিছিলে শোভন-বৈশাখী না যাওয়া নিয়ে বিস্তর জল ঘোলা হয়। চরম অস্বস্তির মুখে পড়ে দল। মিছিল শুরুর কয়েক ঘন্টার আগেই বৈশাখী বন্দ্য়োপাধ্যায় জানান যে, 'আমাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি, তাই আমি মিছিলে যাচ্ছি না।' এরপরেই বান্ধবির অপমানে অপমানিত বোধ করে সম্ভবত শোভনও যাননি মিটিং-এ বলেই চাপানউতোর রাজনৈতিক মহলে। এনিয়ে খোঁচা দিতে ছাড়েন দিলীপ ঘোষও। বুধবার পুরুলিয়ায় চা চক্রে গিয়ে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, 'শোভন-বৈশাখি এখনও বিজেপির সঙ্গে সুর মেলাতে পারেনি।' যদিও এই প্রথমবার নয়, খোঁচা মিলেছে আগেও বহুবার বিজেপির রাজ্য সভাপতির থেকে। প্রসঙ্গত ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটের পর ১৪ অগাস্ট বিজেপিতে যোগ দেন শোভন-বৈশাখী। বিজেপির সদর দফতরে সংবর্ধনা দিতে গিয়ে শোভনকে ডাকা হলে ব্রাত্য ছিলেন বৈশাখী। সেবারও গোসা হয় বৈশাখী। ওই দিন আবার শোভন-বৈশাখীকে 'ডাল-ভাত' বলে মন্তব্য় করতে বিতর্কের মোড় নেয়। পরে অবশ্য মিটিয়ে নেওয়া হয়।

আরও দেখুন, Election Live Update- আজ সবংয়ে সভা শুভেন্দুর, ৮ জানুয়ারি একই জায়গায় পাল্টা সভা তৃণমূলের 

 

অপরদিকে, আগামী সপ্তাহে কলকাতাতেই মিছিল করেই বিজেপির প্রচার কর্মসূচিতে যোগ দিতে চলেছেন শোভন চট্টোপাধ্য়ায় এবং বৈশাখী বন্দ্য়োপাধ্যায়। তবে চলতি সপ্তাহে গোলপার্কের ফ্ল্যাটেই একাধিক সাংগঠনিক বৈঠক করে নেবেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। প্রসঙ্গত, জানা গিয়েছে ঘটনার সূত্রপাত বিজেপির কলকাতা জোনের কমিটি ঘোষণা নিয়ে। ওই কমিটিতে পর্যবেক্ষক শোভন চট্টোপাধ্যায়। সহ-সহায়ক পদে বৈশাখী। এদিকে বৈশাখীর পাশপাশি যুব বিজেপির রাজ্য সহ সভাপতি শঙ্কুদেব পন্ডাকেও ওই কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে। রবিবার কমিটিতে একই পদে শঙ্কুদেবও কেন, এনিয়ে প্রশ্ন তোলেন বৈশাখী। শঙ্কুদেব থাকলে তিনি সোমবারের  মেগা মিছিলে অংশ নেবেন না বলেও জানিয়েছিলেন বৈশাখী। তবে পরে প্রকাশ্য়ে সোমবারের মিছিলে না আসার জন্য  আমন্ত্রণ না পাবার যুক্তি দিয়েছেন বৈশাখী।