'মহিলাদের প্রতি কোনও সম্মান নেই মোদীর', রবিবার তৃণমূল ভবনে প্রধানমন্ত্রীকে নিশানা করেছেন তৃণমূল নেত্রী শশী পাঁজা, জুন মালিয়া সহ অন্য়োনা চক্রবর্তী। এদিকে ভোটের আগে কখনও যোগী রাজ্য়ে ধর্ষণ ,নারী নিরাপত্তা কিংবা নারী সম্মান নিয়ে গেরুয়া শিবিরকে প্রায়শই  আক্রমণ করে চলেছেন মমতার সরকারের নারী বাহিনী। তাই এরপর প্রশ্ন উঠে আসে এরাজ্যের মহিলারা কতটা সম্মান পেয়ে এসেছেন, কিংবা আজও কেন তৃণমূল সরকার চলাকালীন ২০১৩ এর কামদুনি গণধর্ষণ ও খুন, ২০১৫ সালে রানাঘাটের কান্ধামাল ধর্ষণ অর্থাৎ যেখানে এক ৭১ বছর বয়সী ক্য়াথোলিক নানকে ধর্ষণ করা হয়েছিল সেই ঘটনাগুলি একুশের ভোটের আগে চাপা পড়ে যায় বলে এমনই চাপান উতোর উঠল এদিন রাজনৈতিক মহলে।


'মহিলাদের অপমান করছেন প্রধানমন্ত্রী'

 

আরও পড়ুন, 'কয়লাকাণ্ডে সরাসরি জড়িত পিসি-ভাইপো', ৯০০ কোটি লুটের অভিযোগ শুভেন্দুর 

 

 

রবিবার তৃণমূল  ভবনে সাংবাদিক বৈঠক করেন তৃণমূল নেত্রী শশী পাঁজা। তিনি বলেন, 'মমতাকে অপমান করেছেন মোদী। মহিলাদের অপমান করছেন প্রধানমন্ত্রী।' অন্যদিকে তৃণমূল প্রার্থী জুন মালিয়া বলেছেন, 'শুধুমাত্র তৃণমূল নেত্রীকে অপমান করা হয়নি বাংলার, সমস্ত মহিলাদের অপমান করা হয়েছে। তৃণমূল নেত্রীর হাত ধরেই গত ১০ বছরে নারীশক্তির উত্থান হয়েছে। এই পুরুষতান্ত্রিক সমাজে মহিলাদের প্রতিটি পদক্ষেপেই অনেক কিছুর মুখোমুখি হতে হয়। চরিত্রের বিশ্লেষণ তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য।' অনন্যা চক্রবর্তী বলেছেন, 'প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আমরা এমন একজনকে পেয়েছি যাঁর মহিলাদের প্রতি কোনও সম্মান নেই। এমনকি মোদীর বিবাহিত জীবনেও সেটা স্পষ্ট। তিনি বিবাহিত হওয়ার কথা উল্লেখ করেন না নির্বাচনী ফর্মে। একটি রাজ্যে এসে সেখানকার নির্বাচিত মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে তিনি যেভাবে কথা বলছেন, যেভাবে টোন কেটে কথা বলছেন তা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক এবং চিন্তার বিষয়।'

 

 'বারমুডা' প্রসঙ্গে সম্প্রতি এক অভিনেত্রীর নিশানায় পড়েছিলেন দিলীপ ঘোষ

 

আরও পড়ুন, কয়লাপাচার কাণ্ডে পুলিশ আধিকারিককে গ্রেফতার করল ED, ওদিকে লালাকে ফের তলব CBI-র 

 

 

অপরদিকে, সম্প্রতি একটি সভায় রাজ্য়ের সকল রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিদের সামনে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকেও প্রশ্ন করে বসেন একটি তৃণমূল সমর্থক তথা অভিনেত্রী।   টালিগঞ্জের ওই অভিনেত্রী দিলীপ ঘোষকে 'বারমুডা' প্রসঙ্গে নিশানা করে বলেন, 'কেন এভাবে কথা বলেন আপনি বলুন তো। আপনি কি একবারও ভাবেন না। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকেই বা কীভাবে এই কথা বলতে পারেন আপনি। আপনার রুচিতে বাধে না।' ততক্ষণে পাল্টা নিশানা করেছেন দিলীপও, যে তিনি যা বলেন পরিষ্কার বলেন। 'তার কথায় ধার আছে বলেই তাঁকে সবাই পছন্দ করেন।' 


 'আসলে  তর্কে যখন পেরে ওঠেন না, তখনই আপনারা মহিলা হয়ে যান'

 

আরও পড়ুন, ফের প্রার্থী বদল TMC-র, ওদিকে তৃতীয় দফার আগে ৩ পুলিশ অফিসারকে সরাল কমিশন 

 

 


এমন সময় ওই অভিনেত্রী , দিলীপের পাল্টা নিশানায় পড়ে গর্জে উঠে বলেন, 'আপনি আমার এভাবে কথা বলছেন কী করে, আপনার কি একবারও মনে হয় না, যে অভিনেত্রীর আগেও আমি একজন মহিলা। একজন মহিলাকে আপনি এভাবে বলছেন কী করে' বলে তোপ দাগেন ওই অভিনেত্রী। এরপরেই আসে মাহেন্দ্রক্ষণ। দিলীপ ঘোষ আর একটুকুও অপেক্ষা না করে ওই অভিনেত্রীকে কড়া যুক্তির কাঠগড়ায় এনে দাঁড় করান, দিলীপ বলেন, 'না আপনি সবার আগে একজন নাগরিক। তারপর একজন মহিলা। আসলে যখন তর্কে পেরে ওঠেন না, তখনই আপনারা মহিলা হয়ে যান-সংখ্যা লঘু হয়ে যান' বলে পুরো তৃণমূল কর্মী-তথা সমর্থকদের নিশানা করেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।