তাপস দাস, প্রতিনিধি- বাংলার রাজনীতিতে এখন এলেন-পেলেন সময় যাচ্ছে। বিভিন্ন গোত্রের মানুষজন বিভিন্ন দলে যোগ দিচ্ছেন আর বিধানসভার প্রার্থী হয়ে যাচ্ছেন। এ ব্যাপারে অন্যতম ভূমিকা রাখছে টলিউড। পায়েল সরকার তাঁদের অন্যতম। তিনি বিজেপিতে যোগ দেন ফেব্রুয়ারি মাসের শেষাশেষি। আর তার অব্যবহিত পরেই টিকিট পেয়ে যান বিধানসভার। 

পায়েল সরকার লড়ছেন বেহালা পূর্ব বিধানসভা থেকে। ২৫ ফেব্রুয়ারি, এক বৃহস্পতির বারবেলায়, জেপি নাড্ডার উপস্থিতিতে বিজেপিতে যোগ দেন পায়েল। এক মাস না গড়াতেই তিনি বিজেপির প্রার্থী হন। ২২ মার্চ তিনি মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। 

আরও পড়ুন- বেহালায় মিঠুনের রোড শো বাতিল, ফোঁস করে উঠলেন বিজেপির 'কোবরা' প্রচারক.

 

কেন তিনি বিজেপিতে, এ প্রশ্ন তাঁকে করা হয়েছিল একটি সাক্ষাৎকারে। তিনি তাঁর উত্তরে জানিয়েছিলেন, ২০১৪ সাল থেকে তিনি নরেন্দ্র মোদীকে অনুসরণ করেন। তিনি মনে করেন, বিজেপি সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে এমন অনেক কাজ করেছে, যা আগে কেউ করেনি। তবে তিনি যে বিজেপিতে নিজে থেকে যোগ দিয়েছেন, ব্যাপারটা এমন নয়। ওই সাক্ষাৎকারে তিনি স্পষ্ট জানিয়েছিলেন, তাঁর কাছে অফার এসেছিল, যা তিনি গ্রহণ করেছেন। কারণ তিনি মানুষের জন্য কাজ করতে চান। 

৪১ বছর বয়সী পায়েল সরকারের অভিনয়গ্রাফ বেশ দীর্ঘ। ১৭ বছর আগে, অভিজিৎ গুহ-সুদেষ্ণা রায় পরিচালিত শুধু তুমি ছবিতে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের বোনের ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন তিনি। তারপর আর তাঁর কেরিয়ার তেমন হোঁচট খায়নি। সুব্রত সেন, রাজ চক্রবর্তী, রবি কিনাগী, বিরসা দাশগুপ্তের মত পরিচালকদের ছবিতে কাজ করেছেন, অভিনয় করেছেন আবির, ঋত্বিক, পরম, যীশুদের সঙ্গে। ২০১০ সালে তিনি আনন্দলোক পুরস্কার পান। 

আরও পড়ুন- 'কোভিড আক্রান্তরাও ভোট দেবেন', চতুর্থ দফার আগে রাজ্যবাসীকে বিশেষ বার্তা মমতার

 

পায়েলের অভিনয়জীবন এখনও সক্রিয়। এই বিজেপি প্রার্থীর আসন্ন ছবির নাম অনুসন্ধান। মনস্তাত্ত্বিক থ্রিলারধর্মী এ ছবির পরিচালক কমলেশ্বর মুখার্জী, যিনি সিপিএমের সক্রিয় সমর্থক বলে পরিচিত। 

পায়েল সরকারি কোটিপতি প্রার্থী। মনোনয়নের সঙ্গে তিনি যে হলফনামা জমা দিয়েছেন, তার হিসেব অনুসারে, তিনি যে ফ্ল্যাটটিতে বাস করেন, তারই দাম ১ কোটি ৪০ লক্ষ টাকা। তাঁর একটি অডি গাড়ি রয়েছে, যার বর্তমান বাজারদাম ১৬ লক্ষ টাকা। গয়না, ব্যাঙ্ক আমানত ইত্যাদি মিলিয়ে তাঁর রয়েছে মোট ৭১ লক্ষ ৫৮ হাজার টাকারও বেশি অর্থের অস্থাবর সম্পত্তি। 

এ হেন পায়েল সরকারকে এবার লড়তে হচ্ছে রত্না চ্যাটার্জির বিরুদ্ধে। রত্না, প্রাক্তন কলকাতা মেয়র শোভন চ্যাটার্জির স্ত্রী। শোভন-রত্নার মধ্যে বিচ্ছেদ, শোভনের রত্নাকে পরিত্যাগ করে অন্য নারীর সঙ্গে বসবাস, এ সবই ভোটের মেশিনে রত্নার পক্ষে যাবে বলে মনে করছেন অনেকেই। 

পদ্মবনে পায়েলের ঝংকার শোনা গিয়েছে বটে, তবে তা কতদূর স্থায়ী হবে, তা ১০ এপ্রিল জানা যাবে।