বৃহস্পতিবার ভোট চলাকালীন আক্রান্ত হলেন নন্দীগ্রামের বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারীও। তাঁর কনভের উপর ইট মারা হয় বলে অভিযোগ। এই ক্ষেত্রেও প্রার্থীর সঙ্গে সঙ্গে আক্রান্ত হয়েছে সংবাদমাধ্যমও। এই হামলার পিছনেও পাকিস্তানিদেরহাত রয়েছে বলে অভিযোগ তাঁর।

জানা গিয়েছে, ঘটনাটি ঘটেছে নন্দীগ্রামের সতেঙ্গাবাড়ী এলাকায়।  পাথর ছুঁড়ে শুভেন্দু অধিকারীর গাড়ীর সব কাচ ভেঙে দেওয়া হয়েছে। তবে বিজেপি ননেতা অক্ষতই আছেন। তাঁর কনভয়-এর পিছনে পিছনে আসা সংবাদমাধ্যমের গাড়িগুলিও আক্রান্ত হয়েছে। এর আগে, নন্দীগ্রামের কমলপুরের একটি বুথের কাছেও শুভেন্দু অধিকারীর কনভয় ও সংবাদমাধ্যমের কর্মীদের গাড়ির উপর হামলা করা হয়। তাঁর গাড়ি ঘিরে ধরে জয় বাংলা এবং  শুভেন্দু গো ব্যাক স্লোগান দেওয়া হয়।

এই বিষয়ে শুভেন্দু অধিকারী জানিয়েছেন, 'এগুলো পাকিস্তানিদের কাজ। 'জয় বাংলা' বাংলাদেশের স্লোগান।' ওই বুথে একটি নির্দিষ্ট সম্প্রদায়ের ভোটাররা ভোট দেন। তারাই  এই কাজ করেছেন। তবে, তাদের এই ধরণের হামলার মোকাবিলা করার অভিজ্ঞতা রয়েছে। তাই তাঁরা এই হামলা নিয়ে বিশেষ মাথা ঘামাচ্ছেন না। একই সঙ্গে তিনি জাানান, ২ মে তারিখের পর এসব আর থাকবে না। তাই অভিযোগ করার রাস্তাতেও যাবেন না তিনি।

আরও পড়ুন - নিশানায় কমিশন থেকে অমিত শাহ - মুক্তি পেয়েই হুঙ্কার ছাড়লেন মমতা, অট্টহাসি শুভেন্দুর

আরও পড়ুন - নন্দীগ্রামে মমতা কি হারের ভয় পাচ্ছেন - ভরসার তালিকায় কেন এখন রাজ্যপাল, আদালত আর সুদীপ জৈন

আরও পড়ুন - ঝরঝর করে কাঁদছেন নন্দীগ্রামের তৃণমূল এজেন্টের মা, আতঙ্কে বুথেই যেতে দিলেন না ছেলেকে

শুভেন্দু অধিকারী আরও জানান, তিনি ৭০ শতাংশ ভোট পড়ার পর মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায় ঘর থেকে বেড়িয়েছেন, কারণ তিনি ভয় পাচ্ছেন। ভয় পাচ্ছেন,যেখানেই যাবেন, জয় শ্রীরাম শুনতে হবে। তাঁর আশা নন্দীগ্রামে ৮৫ শতাংশ ভোট পড়বে, আর সেই ক্ষেত্রে তিনিই জিতবেন।