Asianet News BanglaAsianet News Bangla

'৮০ শতাংশ মানুষ আমার সঙ্গে রয়েছে', চপ-ঘুঘনি ইস্যু তুলে শুভেন্দুর বিস্ফোরক দাবি

তৃণমূলের মধ্যে ৮০ ভাগ লোক আমার সঙ্গে আছে৷ ফের  বিস্ফোরক বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। বিশ্বকর্মা পুজোর দিন রাজ্যের শিল্পায়ন হয়নি বলে তৃণমূল সরকারের তীব্র সমালোচনা করেন তিনি। পাশাপাশি 'জয় শ্রীরাম' স্লোগানও দেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা

80 percent people of TMC are with me, again claimed BJP leader Suvendu Adhikari bsm
Author
First Published Sep 18, 2022, 2:51 PM IST

তৃণমূলের মধ্যে ৮০ ভাগ লোক আমার সঙ্গে আছে৷ ফের  বিস্ফোরক বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। বিশ্বকর্মা পুজোর দিন রাজ্যের শিল্পায়ন হয়নি বলে তৃণমূল সরকারের তীব্র সমালোচনা করেন তিনি। পাশাপাশি 'জয় শ্রীরাম' স্লোগানও দেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা। পাশাপাশি গরু পাচারকাণ্ডে সিআইডি যে তদন্ত শুরু করেছে তা নিয়ে সমালোচনা করেন। তিনি বলেন এটা সিআইডি কিছুতেই করতে পারে না। কারণ এই ঘনটার তদন্ত করছে সিবিআই। 


 শনিবার শিল্পনগরী হলদিয়ায় বিশ্বকর্মা পুজোর উদ্বোধন করতে গিয়ে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও পূর্ব মেদিনীপুর জেলার এসপিকে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী৷ সেখানেই শুভেন্দু অধিকারী বলেন,‘বাইরে থেকে বুঝতে পারবেন না। আমি ঠিক সময়ে সিগন্যাল দেবো৷ ৮০ ভাগ মানুষই আমার সঙ্গে রয়েছে।’ পাশাপাশি স্থানীয় বাসিন্দাদের নিশ্চিতে থাকার কথাও বলেন তিনি। 

একই সঙ্গে আক্রমণ শানিয়েছেন জেলা পুলিশকেও৷ পূর্ব মেদিনীপুরের জেলার পুলিশ সুপার অমরনাথ ও  হলদিয়া মহকুমা পুলিশ আধিকারিক রাহুল পাণ্ডেকে ‘দালাল’ আখ্যা দিয়ে শুভেন্দু বলেন,‘ওরা কার্বাইড দিয়ে পাকানো মাল৷ তবে দালালগুলো কিছু করতে পারবে না।’ এদিন শিল্পনগরী হলদিয়ায়ে টাটা স্টিল কোম্পানির বিশ্বকর্মা পুজোর শুভ উদ্বোধন করেন শুভেন্দু। সেখানে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও  নিশানা করেন তিনি। বলেন, ‘এই সরকারের আমলে হলদিয়ার বিস্কুট কোম্পানি ছাড়াও রাজ্যের একাধিক কোম্পানি বন্ধ হয়েছে। এই সরকারের আমলে শুধুই বন্ধ হয়েছে। বাবা বিশ্বকর্মা পশ্চিমবঙ্গকে ছেড়ে চলে যেতে চাইছে। আমরা বলছে  একটু দয়া করো? এই রাজ্যেও শিল্প আসবে। বিজেপি ক্ষমতায় এলেই এই রাজ্যে শিল্প হবে।’

খড়গপুরের প্রশাসনিক সভা থেকে রাজ্যের মানুষকে চপ ও ঘুগনির ব্যবসা করার পরামর্শ দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী৷ সেই প্রসঙ্গ টেনে এদিন শুভেন্দুর বলেন,‘হলদিয়ায় বড় মাপের বিশ্বকর্মা পুজো হয়৷ অথচ কোথাও দেখলাম না চপ ও ঘুগনির দোকান রয়েছে!’ তিনি আরও বলেন এই রাজ্যে হাইকোর্ট আছে বলেই মেধার ভিত্তিতে মানুষ চাকরি পাচ্ছে। না হলে রাজ্য সরকার সকলকেই চপ, ঘুঘনি , চা বিস্কুট বিক্রির পরামর্শ দিয়েছিল। রাজ্য সরকার মেধাবি ছেলেমেয়েদের চাকরির কোনও ব্যবস্থা করছে না বলেও প্রকারান্তে অভিযোগ করেন শুভেন্দু।  একই সঙ্গে সিআইডির ভূমিকা নিয়ে কার্যত নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করে শুভেন্দু বলেন, ‘‘সিআইডি হচ্ছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাগর। ভাইপোর কথায় চলছে৷”

ভোল বদলেও লাভ হল না, দু'দিনের মধ্যে গ্রেফতার পুলিশকে মারধরের অভিযোগে অভিযুক্ত দুই বিজেপি কর্মী

চব্বিশের প্রস্তুতি? দুর্গাপুজোর পরেই বাংলায় পা রাখছেন অমিত শাহ

পাঁচ তলা ফ্ল্যাট থেকে পড়ে গেলেন মা ও মেয়ে, দুর্ঘটনার কারণ জানতে ঘটনাস্থলে পুলিশ

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios