আশিষ মণ্ডল, বীরভূম: ভরদুপুরে গুলি চলল বাংলা-ঝাড়খণ্ড সীমান্তে। বাইকে চেপে এসে এক ব্য়বসায়ীকে লক্ষ্য করে গুলি চালাল দুষ্কৃতী। গুরুতর জখম অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি তিনি। ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূম লাগোয়া ঝাড়খণ্ডের শিকারিপাড়া থানার সারাসডাঙা এলাকায়।

আরও পড়ুন: ঘরের ভিতর ঝুলন্ত অবস্থায় স্বামী, বিছানায় পড়ে স্ত্রীর দেহ, জোড়া দেহ ঘিরে শান্তিপুরে রহস্য

আক্রান্ত ব্য়বসায়ীর নাম মনোজ ভকত। বাড়ি, বীরভূমের রামপুরহাট শহরের নিশ্চিন্তপুর এলাকায়। পেশায় তিনি পাথর ব্যবসায়ী। বাংলা সীমান্ত লাগোয়া ঝাড়খণ্ডের শিকারিপাড়া থানা সারাসডাঙায় একটি পাথরের খাদান চালান মনোজ। পরিবারে লোকেরা জানিয়েছেন, রোজকার মতোই বৃহস্পতিবার দুপুরে বাড়ি থেকে খাওয়া-দাওয়া সেরে যখন খাদানে যাচ্ছিলেন, তখন রাস্তায় মনোজকে ঘিরে ধরে কয়েকজন দুষ্কৃতী। আক্রান্তের ভাই বিনোদ প্রসাদ ভকত বলেন, 'সারাসডাঙ্গা থেকে ৮০০ মিটার দূরে দাদাকে মোটরবাইকে এসে কয়েকজন দুষ্কৃতী গুলি করে। খবর পেয়ে আমি দাদাকে রক্তাক্ত অবস্থায় তুলে নিয়ে রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।' পরে অলোককে স্থানান্তরিত করা হয় দুর্গাপুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে। 

আরও পড়ুন: অতিরিক্ত ভিড়ের চাপ, অফিস টাইমে চলবে ৯৫ শতাংশ লোকাল ট্রেন, সিদ্ধান্ত নিল পূর্ব রেল

জানা গিয়েছে, বাইকে করে এসে পিছন থেকে পাথর ব্যবসায়ী অলোক কুমার রায়কে লক্ষ্য করে গুলি চালিয়েছে দুষ্কৃতীরা। গুলি আটকে রয়েছে পিঠে। কিন্তু কী কারণে এই হামলা? কারাই বা গুলি চালাল? তা স্পষ্ট নয় এখনও। তদন্তে নেমেছে ঝাড়খণ্ড পুলিশ।