ব্যবধান মাস খানেকের। ফের বন্দিদের দু'টি গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষ বাধল বারুইপুর সংশোধানাগারে। সংঘর্ষে গুরুতর আহত একজনকে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে কলকাতায়। বুধবার সকালে সংশোধনাগার পরিদর্শন করেন বারুইপুর জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইন্দ্রজিৎ বসু। বাড়ানো হয়েছে নিরাপত্তা।

আরও পড়ুন: তেলিনিপাড়ায় 'পুলিশি নিষ্ক্রিয়তা', প্রতিবাদে ডিএম অফিসের সামনে ধর্নায় লকেট-অর্জুন

জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার রাতে বারুইপুর সংশোধানাগারের ভিতরে আচমকাই বন্দিদের দুটি গোষ্ঠীর মধ্যে বচসা শুরু হয়। প্রথমে হাতাহাতি, এবং শেষপর্যন্ত তা রীতিমতো সংঘর্ষের চেহারা নেয়। পুলিশ কর্মীদের চেষ্টায় দীর্ঘক্ষণ পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। আহত হয়েছে বেশ কয়েকজন। তাঁদের মধ্যে একজনের আঘাত গুরুতর। আর কোনও ঝুঁকি নেয়নি সংশোধনাগার কর্তৃপক্ষ, রাতে ওই বন্দিকে চিকিৎসার জন্য পাঠিয়ে দেওয়া হয় কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে। বুধবার সকালে বারুইপুর সংশোধনাগারে গিয়ে প্রত্যক্ষদর্শীদের সঙ্গে কথা বলেন বারুইপুর জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইন্দ্রজিৎ বসু। সংঘর্ষের কারণে নিয়ে অবশ্য মুখ খুলতে চাননি। 

আরও পড়ুন: লকডাউনে অব্যাহত গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব, ধারালো অস্ত্রে কোপে নিহত তৃণমূল কর্মী

এর আগে চলতি বছরের ২ মার্চও বারুইপুর সংশোধানাগারে বিচারাধীন বন্দিদের দুই গোষ্ঠীর মধ্যে ব্যাপক গন্ডগোল হয়। পরিস্থিতি এতটাই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে যে, একের অপরকে লক্ষ্য ইট ছুঁড়তে শুরু করে বন্দিরা। সেই ঘটনার সঙ্গে মঙ্গলবার রাতের সংঘর্ষের কি কোনও যোগ আছে? সংশোধনাগার সূত্রে খবর, মার্চে মাসে অশান্তির ঘটনায় মূল অভিযুক্ত ছিল পোড়া খোকন নামে এক বন্দি। মাস দুয়েক চুপচাপ ছিল সে। মঙ্গলবার বিকেলে ক্ষমতা কায়েম করার জন্য ফের অশান্তি শুরু করে খোকন। আর তা থেকে গন্ডগোলের সূত্রপাত।