আমাদের শ্বাসযন্ত্র থাকে শরীরের ভিতরে। কিন্তু সদ্যো মুর্শিদাবাদে জন্মগ্রহণ করা এই নবজাতকের শ্বাসযন্ত্র রয়েছে শরীরের বাইরে। বুক নয় প্রায় পেটের কাছে শরীরের বাইর রয়েছে শিশুটির হৃদযন্ত্র। এই নবজাতককে ঘিরেই চাঞ্চল্য তৈরি য়েছে মুর্শিদাদের জঙ্গিপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে। বর্তমানে শিশুটি স্বাভাবিক রয়েছে। স্বাভাবিক ভাবে শ্বাস প্রশ্বাসও নিচ্ছে। চিকিৎসকদের প্রাথমিক অনুমান শিশুটি ওমফালোসিলি রোগে আক্রান্ত। শিশুটিকে নিয়ে  পরিবার দুশ্চিন্তায় দিন কাটাচ্ছে।এ মন অস্বাভাবিক শিশুর জন্মে সকলেই অবাক। তারপর শিশুটির চিকিৎসা কীভাবে করাবেন, তা নিয়ে পড়েছেন চরম দুশ্চিন্তায়। এবিষয়ে জঙ্গিপুর মহকুমা হাসপাতালের সুপার সায়ন দাস বলেন, এটি ওমফালোসিলি হতে পারে, পরীক্ষা নিরীক্ষার পর এবিষয়ে বলা সম্ভব হবে।


জানা গিয়েছে, জঙ্গীপুর মহকুমার অন্তর্গত দোগাছির তানজুম খাতুন প্রসব যন্ত্রণা নিয়ে জঙ্গিপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি হলে,  জন্মের পর দেখা যায় শিশুটির বুক ও পেটের কাছে মাংস পিণ্ডের মতো একটি থলি বেরিয়ে আছে। যে থলিটি একটি পাতলা পর্দা দিয়ে ঢাকা। শ্বাস প্রশ্বাস নেওয়ার সময় পর্দাটি বেলুনের মতো ফুলে ওঠে ও চুপসে যায়।হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, বাইরের দিকে বেরিয়ে থাকা অংশে একটি টিউব লিভার ও হার্নিয়ার মতো কিছু অঙ্গ রয়েছে। যা অপারেশনের মাধ্যমে আবার পেটের ভেতরে প্রতিস্থাপন করা সম্ভব। তার জন্য যথাসম্ভব মেডিক্যালে চিকিৎসার প্রয়োজন। এটি বিরল হলেও নবজাতকদের মধ্যে এটি দেখা যায়। 

নবজাতকের এক আত্মীয়া বলেন, এখন কোথায়, কীভাবে চিকিৎসার ব্যাবস্থা করব, তা নিয়ে খুব দুশ্চিন্তায় আছি। শেষ পর্যন্ত ওকে প্রাণী বাঁচাবো কি করে সেটাই আমাদের কাছে এখন মূল লক্ষ্য"। শিশুটি এখন নিওনেটিভ কেয়ার ইউনিটে রয়েছে। তার অন্যত্র চিকিৎসার ব্যবস্থা করার দিকেই জোর দিচ্ছেন আত্মীয় সজনরা।