মৌলিককান্তি মণ্ডল, নদিয়া-টানা চল্লিশ দিন হাসপাতালের বিছানায় জীবনের সঙ্গে লড়াই করেছেন। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। রবিবার দুপুরে না ফেরার দেশে চলে গেলেন বর্ষীয়ান অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্য়ায়। তাঁর ছেলেবেলা কেটেছে কৃষ্ণনগরে। দুপুরটা খবর শোনার শোকস্তব্ধ সেখানকার বাসিন্দারা। বিশ্বাসই করতে পারছেন না কেউ কেউ। 

আরও পড়ুন-'এই শূন্যতা পূরণ করা কঠিন', সৌমিত্রর প্রয়াণে গভীর শোকপ্রকাশ রাজ্যপালের

কৃষ্ণনগরের সোনাপট্টি এলাকা। সেখানেই পৈত্রিক বাড়ি সৌমিত্র চট্টোপাধ্য়ায়ের। সিএমএস স্কুলে পড়াশুনা করতেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্য়ায়। ছেলেবেলায় তাঁকে পুলু নাম করে ডাকতেন সবাই। অভিনেতার সমসাময়িক বন্ধুরা জানান, কৃষ্ণনগরের সিএমএস স্কুলে পড়াশুনা করতেন তিনি। ছেলেবেলা থেকে নাটক করতেন বলে জানিয়েছেন তাঁরা। তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। সেটা তাঁরা আগেই জানতেন। কিন্তু রবিবার দুপরে এমন দুঃসংবাদ আসবে তা ভাবতেই পারেননি তাঁরা। প্রিয় অভিনেতা বন্ধুর প্রয়াণে শোকপ্রকাশ করলেন তাঁর বন্ধু বুবু মজুমদার।

আরও পড়ুন-৪০ দিনের লড়াই শেষ, সৌমিত্রকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে রবীন্দ্রসদনে অনুরাগীদের ভিড়

আজ বেলা ১২.১৫ নাগাদ কলকাতার বেলভিউ হাসপাতালে মৃত্যু হয়েছে অভিনেতার। মাঝে মধ্যে শারীরিক অবস্থান উন্নতি, অবনতি দোলাচলেই সেখানে চিকিৎসাধীন ছিলেন অভিনেতা।  গত কয়েকদিন ধরে তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। প্রিয় অভিনেতার মৃত্যুর খবর শুনে হাসপাতালে ছুটে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়। বর্ষীয়ান অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্য়ায়ের প্রয়াণে গভীর শোকপ্রকাশ করেন তিনি।