মাত্রাছাড়া আক্রমণের শিকার হলেন রাণু মণ্ডল। এতদিন তাঁর আচার-ব্যবহার নিয়ে কথা চালাচালি হচ্ছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। কিন্তু এবার যা ঘটল তাতে কাঠগড়ায় উঠতে হতে পারে টুইটার এবং ফেসবুককে। চূড়ান্ত নিম্নমানের মিম-এ ভর্তি রাণু মণ্ডল নামে একটি হ্যাশট্য়াগ এই মুহূর্তে টুইটারে ট্রেন্ড করছে। এমনকী এই সব মিম ছড়িয়ে গিয়েছে ফেসবুকে রাণু মণ্ডলের নামে থাকা একাধিক প্রোফাইলে। এরমধ্যে বেশকিছু প্রোফাইল ফেক বলেও জানা গিয়েছে। এমনকী, ফেসবুকে যে প্রোফাইলটিকেও এতদিন আসল রাণু মণ্ডলের বলে দাবি করা হচ্ছিল সেখানকার ওয়াল ভরে গিয়েছে এই সব ডার্ক মিম-এ। 

#RanuMandal

Joker 2.0 is coming guys....Excitation level is damn high😍 pic.twitter.com/EWlYjv9XVx

ডার্ক মিম হল আসলে এক হাস্যরসাত্তক ক্যাপশন লেখা ফোটোকার্ড। কিন্তু, এই হাস্যরস-টা পুরোপুরি একজনকে অত্যন্ত করুচিকরভাবে আক্রমণ করে তৈরি করা হয়। এগুলিকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ডার্ক মিম বলে। রাণাঘাটের রাণু মণ্ডল এবার তেমনই ডার্ক মিম-এর শিকার হয়েছেন। 

 

আরও পড়ুন- ক্যাটরিনা কাইফের মুখ সরিয়ে বসল রাণু মণ্ডলের মুখ, এবার যা হল তাতে চোখ কপালে

সম্প্রতি সামনে এসেছে রাণু মণ্ডলের একটি ছবি। যাতে দেখা গিয়েছে রাণু মণ্ডল গলাভর্তি কস্টিউম জুয়েলারি এবং ব্রাউন কালারের ঘাঘরা-চোলিতে সেজে উঠেছেন। নানা পোজে আবার ছবিও তুলেছেন রাণু। এই সব ছবি আবার সোশ্যাল মিডিয়ায় সঙ্গে সঙ্গে পোস্ট করে দেওয়া হয়। এরপর থেকেই সেই ছবিগুলি দিয়ে নানা ধরনের ডার্ক মিম সোশ্যাল মিডিয়ায় ছেয়ে গিয়েছে। সমস্ত মিমেই অত্যন্ত করুচিকর এবং একজনের আত্মসম্মানকে আঘাত করে ক্যাপশন লেখা হয়েছে। 

আরও পড়ুন- 'অনুকরণ করে বেশি দূর নয়', লতা মঙ্গেশকরের মন্তব্যে এবার মুখ খুললেন রাণু

রাণু মণ্ডল এই ঘাঘরা-চোলি এবং গলাভর্তি গয়না পরেছিলেন একটি ফ্যাশন শো-এর জন্য। কারণ ওই ফ্যাশন শো-এর একজন ডিজাইনারের পোশাক পরে রাম্পেও হাঁটেন রাণু। সেই ভিডিও ফেসবুকে পোস্টও করা হয়েছে। 

টুইটারে কেউ আবার মিম পোস্ট করে রাণু-কে হলিউড ছবি-তে অভিনয় করতে বলেছে। কেউ আবার লিখেছেন, পাউডারের কৌটো মুখের উপরে উল্টে ফেলে মেকআপ নিয়েছেন রাণু। 

আরও পড়ুন- ভুঁয়ো খবর উড়িয়ে প্রকাশ্যে রাণুর নতুন গান, বিতর্ক এড়িয়ে ভাইরাল ভিডিও

এই মিম-এর হাস্যরস যে সকলে অকাতরে গ্রহণ করছেন এমনটা নয়। অসংখ্য মানুষ রাণু মণ্ডলকে এই কদর্য আক্রমণের নিন্দা করেছেন। এই সব ব্যক্তিদের অনেকেই রাণু মণ্ডলের আচার-আচরণ নিয়ে বহুবার প্রতিবাদ করেছেন। তবে, তাঁদের মতে রাণু-কে পছন্দ না হলেও তারমানে এটা নয় যে যা ইচ্ছে তাই বলা যাবে। আক্রমণেরও একটি সীমা থাকে। সেই সীমাটাকে ভেঙে ফেলার কোনও দরকার নেই। পিছনে লাগা যেতে পারে কিন্তু সেটা যাতে লক্ষণ রেখা অতিক্রম করতে না পারে সে বিষয়ে সজাগ থাকতে হবে।