পেঁয়াজের ঝাঁঝে চোখে জল এসেছে গৃহস্থের। একশো ছুঁয়ে এখন উর্ধ্বমুখী পেঁয়াজের দাম। যার জেরে সাধারণের পাতে পড়ছে না পেঁয়াজ। যদিও এই মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদ করতে গিয়ে পেঁয়াজের মালা পরলেন একাধিক কংগ্রেস নেতা। মঙ্গলবার যার সাক্ষী থাকল পশ্চিম মেদিনীপুর। 

বাজারে অন্যান্য সব্জির সাথে পেঁয়াজের দামও বেড়েছে ৷ কিন্তু তার পরিমাণ অন্যান্য সব্জির তুলনায় অনেক বেশি ৷ বর্তমানে একশো টাকা ছাড়িয়েছে পেঁয়াজের কিলো ৷ রাজ্য় সরকারের মূল্যবৃদ্ধির ওপর নিয়ন্ত্রণ না থাকায় প্রতিবাদে নেমেছে পশ্চিম মেদিনীপুরের কংগ্রেস নেতৃত্ব। বাজারে বিভিন্ন সব্জির দাম বেড়ে যাওয়ার প্রতিবাদে এদিন কংগ্রেসের নেতারা বলেন, রাজ্য়ে এই মূল্যবৃদ্ধির বিরুদ্ধে কোনও ব্য়বস্থা নিচ্ছে না রাজ্য সরকার। মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়ের তরফে কোনও টাস্ক ফোর্স গঠন করে মূল্য নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা হচ্ছে না। মূলত ফড়েদের বেআইনিভাব মজুতকরণের জন্যই এই মূল্য বৃদ্ধি। 

বাজারের হিসেব  বলছে, মেদিনীপুর শহর সহ জেলা জুড়ে পেঁয়াজের দাম একশোর বেশি ৷ তাই মঙ্গলবার দুপুরে মেদিনীপুর শহরের কালেক্টরেট-এর সামনে প্রতিবাদ বিক্ষোভ দেখায় কংগ্রেস ৷ কংগ্রেস নেতারা কালেক্টরেটের সামনে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান৷  রাজ্য সরকার সহ কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন নীতির প্রতিবাদ করে এই বিক্ষোভ চলে ৷ শেষে প্রধানমন্ত্রীর কুশপুতুল দাহ করে বিক্ষোভকারীরা ৷ কংগ্রেস জেলা সভাপতি সৌমেন খান বলেন, একের পর এক ভ্রান্ত নীতির কারণে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে কেন্দ্রের সরকার ৷ পেট্রোপণ্য়ের দাম বেড়ে গিয়েই এই সমস্যা তৈরি হয়েছে ৷

কেন্দ্রীয় সরকারের পাশাপাশি রাজ্য সরকারকেও এক হাত নেন কংগ্রেসের নেতারা। তাঁরা বলেন, দাম নিয়ন্ত্রণে কোনও ব্য়বস্থা নিচ্ছে না রাজ্য। অবিলম্বে টাস্ক ফোর্স দ্বারা বাজারের মূল্য নিয়ন্ত্রণ না হলে বৃহত্তর আন্দোলনে নামবে কংগ্রেস ৷