চার বছরের ভালোবাসায় বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছিল পরিবার। মেয়ে নাবালিকা হওয়ায় আরও চাপ আসছিল যুবকের ওপর। পছন্দ মতো মেয়ের বিয়ে দিতে শুরু হয়েছিল পাত্র দেখা। তাই আর দেরি করেনি প্রেমিক যুগল। প্রেমের সম্পর্কে সিলমোহর দিয়েই ইতি টানতে চেয়েছিল জীবনে। প্রেম দিবসের আগে যার নেট ফল, বিষ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা। দুজনেই আশঙ্কাজনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন হাবড়া হাসপাতালে

পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার বর্ষপূর্তি, শহিদের স্মরণ করলেন মুখ্যমন্ত্রী

সূ্ত্রের  খবর, মেয়ের বয়স কম হওয়ায় প্রথম বর্ষের ছেলের সঙ্গে মেয়ের মেলামেশা ভালো ভাবে নেয়নি মেয়ের পরিবার।  অন্যদিকে, পড়াশোনা শেষ না  হওয়ায় এখনই সংসার পাতা  কঠিন  ছিল প্রেমিকের। বেকার যুবকের সঙ্গে স্বাভাবিকভাবেই মেয়ের সম্পর্ক চাইছিল না পরিবার । একাদশ শ্রেণির ছাত্রীর বিয়ে দিতে শুরু হয়েছিল পাত্র দেখার কাজ। কিন্তু তাতে  মত ছিল না প্রেমিকার। চার বছরের সম্পর্কে ভেঙে ফেলতে চাইছিল না মেয়ে। তাই প্রেম দিবসের আগের রাতেই দুজনে একসঙ্গে বিষ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। 

ভালবাসার দিনে ভিড় উপচে পড়ল ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোয়, টিকিটের সঙ্গে উপহারে মিলল গোলাপ

বৃহস্পতিবার রাত ন'টা নাগাদ ঘটনাটি ঘটেছে নদিয়ার হরিণঘাটা থানার নগরউখড়া এলাকায় । বিষ খাওয়ার কথা জানতে পেরে নাবালিকা ও যুবককে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে তাদের বন্ধুরা । দুজনেই হাবড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন । তবে নাবালিকার অবস্থা আশঙ্কাজনক হলেও বৃহস্পতিবার রাতের পরে নাবালিকার পরিবারের কেউ  হাসপাতালে দেখতে পর্যন্ত আসেনি । হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, নাবালিকাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য চিকিৎসার জন্য অন্য হাসপাতালে নেওয়া জরুরি ,তার অবস্থা আশঙ্কাজনক ।