জিরাটের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী অপহরণ করে খুনের মামলায় দোষী সাব্য়স্ত হল অভিযুক্তরা। বুধবার অন্বেষা মন্ডলকে মুক্তিপনের জন্য  অপহরণ করে গনধর্ষণ, খুনের ঘটনায় অভিযুক্তদের দোষী ঘোষণা করে চু্ঁচুড়া আদালত। ২০১৪ সালের সাড়া  ফেলে দেওয়া এই ঘটনায় অভিযুক্ত ছিল তিনজন। গৌরব মন্ডল ওরফে শানু,কৌশিক মালিক ও স্বরূপ মজুমদার। এই তিনজনকেই গ্রেফতার করে বলাগড় থানার পুলিশ। ধৃতদের বিরুদ্ধে ৩৬৩,৩৬৪/এ,৩৭৬(২),৩০২,২০১,৩৪ ও ৬ পকসো ধারায় মামলা রুজু হয়। 

২০১৪ সালের ১২ ডিসেম্বর গৃহশিক্ষিকার কাছে পড়ে  সাইকেল নিয়ে ফেরার পথে অপহরণ হয় ওই ছাত্রী । তিন লাখ টাকা মুক্তিপন চেয়ে ছাত্রীর বাবা চিন্ময় মন্ডলের কাছে ফোন আসে।পুলিশে অভিযোগ করে ছাত্রীর পরিবার। ১৪ তারিখ ইট ভাঁটার পিছনে গঙ্গার পাড়ের মাটি খুঁড়ে  মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ছাত্রী চেঁচামেচি করায় তাকে গলা টিপে খুন করে অভিযুক্তরা।

মৃত্যুর পর গনধর্ষণ করা হয় ছাত্রীকে। পরে বস্তাবন্দি করে গঙ্গার চরে পুঁতে দেওয়া হয় দেহ। পাঁচ বছর পর সেই ঘটনায় দোষী সাব্যস্ত হল অভিযুক্তরা। চুঁচু্ড়া আদালতের এ্যাডিশনাল ডিস্ট্রিক্ট সেশন জজ(সেকেন্ড কোর্ট) এদিন গৌরব মন্ডল ও কৌশিক মালিককে দোষী সাব্যস্ত করেন। অন্যদিকে স্বরূপ মজুমদারের বিচার জুভেনাইল আদালতে বিচারাধীন। আগামী ২৭ জানুয়ারি সাজা ঘোষণা হবে।