আশিষ মণ্ডল, বীরভূম: করোনা আতঙ্কের মাঝেই নিয়ম শিথিল হল আরও। অগাস্ট মাসের শেষের দিকে খুলে গিয়েছে তারাপীঠ মন্দির। পূর্ণ্যার্থীদের এবার গর্ভগৃহে ঢোকার অনুমতিও মিলল। মঙ্গলবার পুজোও দিলেন অনেকে।

আরও পড়ুন: করোনার থাবায় উধাও বিনোদন, কাজ হারানোর আশঙ্কায় অ্য়াকোয়াটিকার ১০০ শ্রমিক

লকডাউনের জেরে প্রায় মাস তিনেক বন্ধ ছিল মন্দির। আনলক পর্বে যখন প্রথমবার তারাপীঠের দরজা খোলে, তখন কিন্তু পূর্ণ্যার্থীদের গর্ভগৃহে ঢোকার অনুমতি ছিল না। বিগ্রহ দর্শন করতে হচ্ছিল বাইরে থেকে। এরপর কৌশিকী অমাবস্যায় ভিড় এড়াতে আটদিন তারাপীঠ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। যদিও সেই সিদ্ধান্ত কার্যকর করা যায়নি পুরোপুরি। কৌশিকী অমাবস্যার দিন সকালে যথারীতি মন্দিরের নিচে দাঁড়িয়ে পুজো দেন বহু মানুষ। এমনকী, সন্ধ্যায় নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে গর্ভগৃহে ঢুকে পড়েন খোদ বীরভূমের পুলিশ সুপার শ্যাম সিং। শেষপর্যন্ত ২৩ অগাস্ট থেকে আগের নিয়ম বলবৎ রেখে ফের তারাপীঠ খুলে দেওয়া সিদ্ধান্ত নেয় মন্দির কমিটি।  এবার কার্যত আর কোনও বিধিনিষেধই আর থাকল না।

আরও পড়ুন: বাঁকুড়ায় 'লালমাটির রান্নাঘর', ১৫ টাকায় মিলছে ভরপেট খাবার

তারাপীঠ মন্দির কমিটির সেবাইত পুলক চট্টোপাধ্যায় বলেন, 'ট্রেন এখনও চালু হয়নি। বাড়তি টাকা খরচ করে তারাপীঠ পুজো দিতে আসছেন ভক্তেরা। কিন্তু গর্ভগৃহে ঢুকে মা স্পর্শ করতে না পারায় ভারাক্রান্ত মনে ফিরতে যাচ্ছেন অনেকেই। তাই সামাজিক দূরত্ব মেনে গর্ভগৃহে ঢোকার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।'