একের পর এক বন্ধ হয়ে যাচ্ছে স্কুল, পিছিয়ে যাচ্ছে পরীক্ষা। পাশাপাশি বেশ কিছু অফিসও বাড়ি থেকে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছে। ফলে পুরো পরিবার এক কথায় এখন গৃহবন্দি। অন্যান্য সময় পরিবারের সকলকে এক জায়গায় পাওয়া যেমন কষ্টসাধ্য বিষয়, তেমনটাই সমস্যা তৈরি হয় নির্দিষ্ট সময় ছুটি পেতে। তাই অনেকেই করোনার হাতছানিকে উপেক্ষা করেই ঘর ছাড়ছেন। 

আরও পড়ুনঃকরোনা আতঙ্কের মধ্যে বিতর্কে অঞ্জন দত্ত, বিদেশ থেকে ফিরেই যোগ দিলেন জমায়েতে

আরও পড়ুনঃবিপুল ক্ষতির মুখে বিনোদন জগৎ, দিন মজুরের পাশে দাঁড়াল প্রডিউসার্স গিল্ড অফ ইন্ডিয়া

বন্ধ হয়েগিয়েছে বেশ কিছু মন্দির দর্শন। বন্ধ হয়েছে পাহাড়ে ভ্রমণ। একাধিক জায়গাতে জাড়ি করা হয়েছে ১৪৪ ধারা। জমায়েত রুখতে মানুষকে প্রয়োজন ছাড়া বাড়ি থেকে বেরতেও নিষেধ করা হচ্ছে। এমনই পরিস্থিতিতে দিঘায় ধরা দিন উল্টো চিত্র। রীতিমত ছুটির মেজাজে মেতেছেন বেশ কিছু পর্যটকেরা। ফাঁকা রাস্তা ঘাট, বন্ধ বিমান চলাচল, কিন্তু নিয়ম উপেক্ষা করেই পর্যটকদের ঢল দিঘার বিচে। 

আরও পড়ুনঃকরোনা থেকে বাঁচতে হাত ধুতে গিয়ে হচ্ছে সাংঘাতিক ভুল, মনে করিয়ে দিলেন মধুমিতা

পুরীতে পর্যটকদের যাওয়ার ওপর একাধিক নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। কিন্তু দিঘার ছবিটা দেখে এবার কড়া সিদ্ধান্ত নেওয়া হল জেলা শাসকের পক্ষ থেকে। বন্ধ কর দেওয়া হল পর্যটকদের সমুদ্রস্তান। দিঘার বিচে জমায়েরভাবে যাওয়াও যাবে না। পূর্ব মেদিনীপুরের জেলাশাসক পার্থ ঘোষ জানান যে, করোনা সংক্রমণ রুখতেই কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে পিকনিক। বৃহস্পতিবার থেকেই এই পদক্ষেপ নিল প্রশাসন।