আজ পশ্চিম মেদিনীপুরে সভা তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের। শুভেন্দুর সঙ্গে তৃণমূলের সংঘাতের আবহেই উত্তেজনার পারদ চড়ছে রাজ্য রাজনীতিতে। মেদিনীপুরের সভা থেকে কী বার্তা দেবেন মমতা? তা নিয়ে রাজনৈতিক জল্পনা তুঙ্গে। এই অবস্থায় তৃণমূল নেত্রীর পালটা কর্মসূচি নিল বিজেপির যুব মোর্চা। আজই উত্তরকন্যা অভিযানের পালটা কর্মসূচি নিল দিলীপ ঘোষেরা।

আরও পড়ুন-মেদিনীপুরে তৃণমূল নেত্রীর সমাবেশ ঘিরে উত্তেজনার পারদ, নিজেদের মর্যাদার দাবিতে পুরনোকর্মীদের স্লোগান

উত্তরকন্যা অভিযানে বিজেপি যুব মোর্চার উদ্যোগে। কিন্তু সেই অভিযানের প্রথমসারিতে রয়েছে রাজ্য বিজেপির শীর্ষ নেতারা। রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ থেকে সায়ন্তন বসু। এছাড়াও অভিযানে রয়েছেন আলিপুরদুয়ারের সাংসদ জন বার্লাও। শাসকদল তৃণমূলের বিরুদ্ধে দুর্নীতি, উত্তরবঙ্গে চা শ্রমিকের প্রতি বঞ্চনা সহ একাধিক ইস্যুতে সোমবার বিজেপির উত্তরকন্যা অভিযান। আর এদিন অভিযানের শুরুতেই ধাক্কা খেল বিজেপি শিবির। 

আরও পড়ুন-আজ মমতার সভা মেদিনীপুরে, শুভেন্দুকে নিয়ে কী বার্তা, অপেক্ষায় সারা বাংলা

উত্তরকন্যা অভিযানের শুরুতেই দিলীপ ঘোষদের আটকে দেয় পুলিশ। আটকে দেওয়া হয় উত্তরবঙ্গের দায়িত্বে থাকা বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসুকেও। এছাড়াও, আলিপুরদুয়ারের বিজেপি সাংসদ জনবার্লাকেও আটকে দেয় পুলিশ। অভিযানের শুরুতেই তাঁদের আটকে দেওয়ায় রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে সরব হন দিলীপ ঘোষ, তিনি বলেন, ''রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলায় অভিযুক্ত বিমল গুরংকে পুলিশি নিরাপত্তা দিয়ে সভা করার অনুমতি দিয়েছে রাজ্য সরকার। অথচ, বিজেপি সরকার দুর্নীতি নিয়ে উত্তরকন্যা অভিযান করলে তাঁদের আটকে দেওয়া হচ্ছে''। 

বিজেপির উত্তরকন্যা অভিযান ঘিরে উত্তরবঙ্গ জুড়ে পুলিশি নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। বিজেপি কর্মী সমর্থকদের আটকাতে জেলার সীমানা ও অভ্যন্তরে ব্যারিকেড তৈরি করেছে পুলিশ। সূত্রের খবর, উত্তরকন্যা অভিযানে দুদিক থেকে দুটু মিছিল করবে বিজেপি শিবির। একটি মিছিল হবে জলপাইগুড়ির ফুলবাড়ি থেকে অন্যটি শিলিগুড়ির জলপাই মোড় থেকে। সেখান থেকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। কিন্তু মিছিল শুরু আগেই তাঁদের আটকে দিল পুলিশ।