কষ্ট করে জমিতে ফসল ফলিয়েছেন। আলুর ক্ষেত বাঁচাতে গিয়ে হাতির হামলায় বেঘোরে প্রাণ গেল এক ব্যক্তির। ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে বাঁকুড়ার বেলিয়াতোড়ে। বনদপ্তরের ভূমিকায় ক্ষুদ্ধ স্থানীয় বাসিন্দারা।

তখন সবেমাত্র ভোর হয়েছে। জঙ্গল থেকে সটান বেলিয়াতোড়ের লিগেমোচড় গ্রামে ঢুকে পড়ে তিনটি হাতি। হাতিগুলিকে তাড়া করেন গ্রামবাসীরা। জানা গিয়েছে, তাড়া খেয়ে যখন জঙ্গলের দিকে পালাচ্ছিল, তখন গ্রামের আলুর ক্ষেতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি করে হাতিগুলি। ঘটনার কথা জানতে পেরে আর নিজেকে স্থির রাখতে পারেননি বাহাদুর বাউরি নামে এক ব্যক্তি। ফসল বাঁচাতে জমিতে চলে যান তিনি। আর তাতেই ঘটে বিপত্তি। গ্রামবাসীরা জানিয়েছেন, হাতির সামনে পড়ে যান বাহাদুর।   স্রেফ শুড় দিয়ে পেঁচিয়ে আছাড় মেরেই ক্ষান্ত হয়নি, তাঁকে পা দিয়ে পিষে দেয় একটি দাঁতাল হাতি। ঘটনাস্থলেই মারা যান বছর বিয়াল্লিশের ওই ব্যক্তি।  ঘটনায় আতঙ্কিত স্থানীয় বাসিন্দারা।

আরও পড়ুন: কাটোয়ায় বাড়ির কাছেই খুন তৃণমূল ঘনিষ্ঠ প্রোমোটার, অভিযুক্ত বিজেপি কর্মী

আরও পড়ুন: 'লিটল লতাজি'-র গলায় এবার তারা রাম পাম পাম, নেট দুনিয়ায় ভাইরাল প্রজ্ঞার নতুন গান

এর আগে মঙ্গলবার ২০ হাতির একটি দল ঢুকে পড়েছিল বাঁকুড়ার রানিবাঁধ এলাকায় বুধখিলা গ্রামে।  রাতে বাড়ি উঠোনে ঘুমন্ত অবস্থায় হাতি এক বৃদ্ধাকে পা দিয়ে পিষে মেরেছিল।  প্রাতঃকৃত্য সেরে বাড়ির ফেরার পথে হাতির হামলার প্রাণ যায় আরও একজনের। কিন্তু  বাঁকুড়ার বিভিন্ন প্রান্তে লোকালয়ে কেন বারবার ঢুকে পড়ছে হাতি? বনদপ্তরের ভূমিকায় ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।