কাঁকড়া ধরতে বাঘের মুখে পড়লেন কয়েকজন। করোনা আবহের মধ্যে সংসারের খরচ টানতে মাছ ছাড়াও কাঁকড়া ধরে অর্থ উপার্জন করতে হয় তাঁদের। সেই মতো দল বেঁধে সুন্দরবনে কাঁকড়া ধরতে গিয়েছিলেন পাঁচজনের একটি দল। কাঁকড়া ধরার পাশাপাশি, জঙ্গলে ঢুকে জ্বালানি কাঠ সংগ্রহ করেন তাঁরা। সেই সময় বাঘের মুখে পড়েন ওই পাঁচজন।

আরও পড়ুন-নবান্ন অভিযানে পুলিশের বেদম মার খাওয়া কর্মীদের সম্মান জানাবে বিজেপি, জানালেন সৌমিত্র খাঁ

জানাগেছে, বুধবার সকালে কুলতলির দেউলবাড়ি থেকে পাঁচজন ব্যক্তি সুন্দরবনে কাঁকড়া ধরতে গিয়েছিলেন। সুন্দরবনের খারি নদীতে কাঁকড়া ধরেন তাঁরা। শুক্রবার বিকেলে জ্বালানি কাঠ সংগ্রহ করতে সুন্দরবনের কলস জঙ্গলে নামেন তাঁরা। সেখানে ওতপেতে ছিল একটি বাঘ। জঙ্গলে কাঠ কাটার সময় আচমকা তাপস মণ্ডল নামে এক ব্যক্তির উপর হামলা করে। তাপসের কাঁধে কামড় দিয়ে জঙ্গলে টেনে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে বাঘটি। সেই সময় তাঁদের সঙ্গীরা চিৎকার চেঁচামেচী করে বাঘটিকে লাঠি দিয়ে আঘাত করলে তাপস ছেড়ে পালিয়ে যায়।

আরও পড়ুন-শুভেন্দু অধিকারীর মনেও কি গেরুয়া'র ছোঁয়া, বিতর্কের কেন্দ্রে একটি কার্ড ও পাগড়ি

বাঘের হামলায় গুরুতর জখম হন তাপস মণ্ডল। তাঁকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে জামতলা হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়। ঘটনার জেরে আতঙ্ক ছড়িয়েছে তাপস ও তাঁর অন্যন্য সঙ্গীদের পরিবারের মধ্যে। বিকল্প উপার্জনের পথ নিয়ে উদ্বিগ্ন তাঁরা।