ভরসন্ধ্যেবেলায় বাড়িতে থেকেই উধাও হয়ে দিয়েছিলেন তিনি। শেষপর্যন্ত দেওরের বাড়িতে মিলল এক গৃহবধূর অর্ধনগ্ন দেহ। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে হুগলির রিষড়ায়। মৃতের দেওর পেশায় টোটো চালক। তাঁর খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না।

আরও পড়ুন: রোগ লুকিয়ে বিয়ের শখ, হালিশহরে এইচআইভি আক্রান্ত বরকে আটক করল পুলিশ

ওই গৃহবধূর নাম নাসিমা বিবি। বাড়ি, কোন্ননগরের চটকল এলাকায়। শুক্রবার সন্ধ্যা আচমকাই বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়ে যান নাসিমা। তেমনই দাবি করেছেন তাঁর স্বামী মহম্মদ মুশ্লিম। তাঁর বক্তব্য, অনেক খোঁজাখুঁজি করেও সেদিন আর স্ত্রীর সন্ধান মেলেনি। রাতে মিসিং ডায়েরি করা হয় উত্তরপাড়ায় থানায়।  জানা গিয়েছে, শনিবার মেয়ের শ্বশুরবাড়িতে নাসিমার খোঁজ করতে দিয়েছিলেন মুশ্লিম। তখন তিনি জানতে পারেন, ওই গৃহবধূ সেখানেই ছিলেন। কিন্তু পরে তাঁকে ডেকে নিয়ে যান দেওর মহম্মদ আসলাম। তিনি থাকেন রিষড়ায় মৈত্রপথ এলাকায়। মৃতার স্বামীর দাবি, সন্ধ্যায় তিনি যখন ভাইয়ের বাড়িতে যান, তখন দরজা বাইরে থেকে বন্ধ ছিল। কিন্তু দরজার বাইরে ছিল নাসিমার চটি। সন্দেহ হওয়ার থানায় খবর দেন তিনি।  দরজা ভেঙে বাড়িতে ঢোকে পুলিশ। দেখা যায়, বিছানায় ওই গৃহবধূর মৃতদেহ পড়ে রয়েছে। তাঁর পরনে অন্তর্বাস ছাড়া আর কিছুই ছিল না, শরীর ঢাকা দেওয়া ছিল ওড়নায়। পুলিশ জানিয়েছে, নাসিমার শরীরে আঘাতে কোনও চিহ্ন নেই। মৃত্য়ুর প্রকৃত কারণ জানতে দেহটি ময়নাতদন্তে পাঠানো  হয়েছে। ঘটনাটি জানাজানি হতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে এলাকায়।

আরও পড়ুন: বেনজির হিংসায় আতঙ্ক, দিল্লি থেকে ফিরছেন মুর্শিদাবাদের শ্রমিকরা

এদিকে স্থানীয় বাসিন্দাদের একাংশের দাবি, দেওর আসলামের সঙ্গে বিবাহ-বর্হিভূত সম্পর্ক ছিল নাসিমা। রিষড়ায় ভাড়া বাড়িতে দু'জনের একসঙ্গে থাকতেন। যদিও এ বিষয়টি নিয়ে সরাসরি মুখ খুলতে রাজি নয় কেউই। ঘটনার তদন্তে নেমেছে উত্তরপাড়া থানার পুলিশ।