আশিষ মণ্ডল, বীরভূম: সংক্রমণের ভয়ে গরহাজির আইনজীবীরা, কাজকর্ম শিকেয় উঠেছে। করোনা পরীক্ষার জন্য এবার শিবির করে লালারস সংগ্রহ করা হল আদালতেও। আইনজীবী, মহুরি, এমনকী বিচারকরাও পরীক্ষা করিয়ে নিলেন। ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমে রামপুরহাটে।

আরও পড়ুন: মুর্শিদাবাদে করোনা সংক্রমণের শিকার তৃণমূল বিধায়ক, চিকিৎসার জন্য আনা হল কলকাতায়

যতদিন যাচ্ছে, করোনা সংক্রমণ যেন ততই ছড়াচ্ছে। লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা রাজ্যের সর্বত্রই। ব্যতিক্রম নয় বীরভূম জেলা। পরিস্থিতি এমনই যে, কোথা কোথা অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে আদালতও। বীরভূমের রামপুরহাট আদালত কিন্তু এখনও পর্যন্ত খোলাই রয়েছে। তবে সংক্রমণের ভয়ে গত কয়েকদিন ধরে আদালতে আসছেন না আইনজীবীরাও। ফলে কাজকর্ম কার্যত বন্ধ। শনিবার রামপুরহাট মহকুমা আদালতে শিবির করে চলল লালারসের নমুনা সংগ্রহের কাজ। শিবিরের মূল উদ্যোক্তা অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা বিচারক সুদীপ্ত ভট্টাচার্য। তিনি লিগ্যাল অ্যাডভাইসারি কমিটির চেয়ারম্যানও বটে।  সরকারি আইনজীবী সুরজিৎ সিনহা বলেন, 'সর্বত্রই এখন করোনা আতঙ্ক। আদালত চত্বরও তার বাইরে নয়। শুধুমাত্র বিচারক, আইনজীবী বা মুহুরিরাই নন, যাঁরা আদালতে নিয়মিত যাতায়াত করেন, তাঁরা শিবিরে লালারসের নমুনা দিয়েছেন। ফলে মানুষের সচেতনতা বাড়বে।'

আরও পড়ুন: ভিনরাজ্যে যুবকের অস্বাভাবিক মৃত্যু, গ্রামে সালিশি সভায় জরিমানা, আত্মঘাতী কাকা

উল্লেখ্য, আগে বীরভূমে লালারস পরীক্ষার কোনও ব্যবস্থা করা ছিল না। পরীক্ষার জন্য নমুনা পাঠাতে হত কলকাতা কিংবা বহরমপুরে। কিন্তু এখন জেলাশহর সিউড়িতেও করোনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। স্থানীয় বসোয়া ব্লক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে বিএমওএইচ অভিজিৎ রায়চৌধুরী জানিয়েছেন, 'করোনা ভাইরাস পরীক্ষা করার জন্য নাক ও মুখের লালারস সংগ্রহ করা হয়েছে।'