বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার কনভায়ে হামলা নিয়ে যখন দুই রাজনৈতিক দলের বাকযুদ্ধ তুমুল আকার নিয়েছে, সেই সময়ই পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের পক্ষ থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় বার্তা দিয়ে জানান হয়েছে, নিরাপদেরই গন্তব্যে পৌঁছেছেন জেপি নাড্ডা। একই সঙ্গে বলা হয়েছে তাঁর কনভয়ের কোনও ক্ষতি হয়নি। তবে পাথর হামলার কথা স্বীকার করে পুলিশের তরফে জানান হয়েছে পুরো বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে। অন্যদিকে সূত্রের খবর হামালর রিপোর্ট তলব করেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। 

২ সপ্তাহ পরেও হুংকার অব্যাহত কৃষকদের, আরও একবার আলোচনার টেবিলে ডাকলেন মন্ত্রী ...

লাদাখ ইস্যুতে আন্তর্জাতিক মঞ্চ থেকে চিনকে হুঁশিয়ারি, এবারও নাম ছাড়াই আক্রমণ রাজনাথের ...

বৃহস্পতিবার দলীয় কর্মসূচিতে ডায়মন্ড হারবারে যাচ্ছিলেন জেপি নাড্ডা। তাঁর সঙ্গে দিলেন রাজ্য বিজেপির প্রথম স্তরের নেতারাও। আর সেই সময় দেবীপুর, ফলতাসহ বেশ কয়েকটি জায়গায় তাঁর কনভয় লক্ষ্য করে পাথর ছোঁড়ে একদল দুষ্কতীয়। আর তাই নিয়ে দিনভর তরজা চলতে থাকে দুই রাজনৈতিক দলের। সেই পরিপ্রেক্ষিতে এদিন রাজ্য পুলিশের পক্ষে থেকে পরপর দুটি বার্তা সোশ্যাল মিডিয়ায় দেওয়া হয়। রাজ্য পুলিশের তরফ থেকে বলা হয়, নাড্ডার কনভয় কিছু হয়নি। তিনি নিরাপদেই গন্তব্যে পৌঁছেছেন। রাস্তায় কয়েক জায়গায় তাঁর কনভয় লক্ষ্য করে হামলা চালান হয়। তবে তাতে কনভয়ের কোনও ক্ষতি হয়নি বলেও জানান হয়েছে। একই সঙ্গে জানান হয়েছে পুরো ঘটনাই তদন্ত সাপেক্ষা। 

নাড্ডার কনভয়ে হামলার পর থেকেই বিজেপির রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা নিয়ে প্রশ্ন তুলে সরব হয়। রাজ্যস্তরের নেতাদের পাশাপাশি সর্বভারতীয় স্তরে নেতাও বিষয়টি নিয়ে রাজ্যে প্রশাসনের তীব্র সমালোচনা করেন। সূত্রের খবর দলীয় সভাপতির কনভয় হামলার পরিপ্রেক্ষিতে রাজ্য থেকে দুটি রিপোর্ট তলব করেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ। নাড্ডার কনভয়ে হামলার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি রাজ্যপালের কাছ থেকে রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা সম্পর্কিত একটি রিপোর্টও চেয়েছেন। মাত্র ১২ ঘণ্টার মধ্যে রিপোর্ট পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। একই সঙ্গে বাংলার সরকারকে এই বিষয় নিয়ে জবাবদিহি করতে হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।