দক্ষিণ কলকাতায় ভাষা দিবসের অনুষ্ঠানে কিছুটা চড়া সুরেই কেন্দ্রের বিজেপি সরকারকে আক্রমণ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।  তিনি বলেন, 'ধমকানি, চমকানি আর জেলের ভয় দেখাবেন না।' রবিবার দেশপ্রিয় পার্কের ভাষা দিবসের অনুষ্ঠানে গিয়ে তিনি বলেন, 'শুনেছি কখনও কখনও বিজেপি কেন্দ্রের নেতারা বলছেন, বাংলার মেরুদণ্ড ভেঙে দেবেন। তারপরই  চ্যালেঞ্জ ছোঁড়ার ভঙ্গিতে তৃণমূল সুপ্রিমো বলেন, আমি বলছি আসুন, একবার চেষ্টা করে দেখুন। অনেকবার তো ভেঙে দেওয়ার চেষ্টা করেছেন।'  

ঘটনা চক্রে এদিনই তৃণমূল কংগ্রেস নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী রুজিরা নারুলাকে কয়লাকাণ্ডে নোটিশ পাঠিয়েছে সিবিআই। যা নিয়ে সকাল থেকেই উত্তপ্ত রাজ্যরাজনীতি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আগে বিজেপির বিরুদ্ধে সমালোচনায় সরব হয়েছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। যদিও সরাসরি বিষয়টি উত্থাপন করেননি তিনি। তবে সেই সূত্র ধরেই এদিন বিজেপির বিরুদ্ধে সরব হন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, 'সব ভয় অনেকদিন আগেই পার করে এসেছেন তিনি। 'বন্দুকের সঙ্গে লড়াই করেছেন। নেংটি ইঁদুরের সঙ্গে লড়াই করতে ভয় পাব কেন? ভয় পাওয়ার কোনও কারণ নেই।' যতক্ষণ প্রাণ রয়েছে ততক্ষণ লড়াই চালিয়ে যাবেন বলেও জানিয়েছেন তিনি। 

যাদবপুরে BJP-TMC র সামনে কি দাঁড়াতে পারবে বামেরা, রাজ্যের ভোট মানচিত্রে গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্র ...

হিমবাহ হ্রদ্রের তল পেতে হেলিকপ্টারে অভিযান, কঠিন পথে নৌবাহিনীকে সাহায্য বিমান বাহিনীর ...

এই অনুষ্ঠানেই তিনি বলেন, পশ্চিমবঙ্গের নাম পাল্টে বাংলা করার প্রস্তাব তিনি দিয়েছিলেন। কিন্তু চার বছর ধরে বিষয়টা আটকে রেখে দেওয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। তিনি আরও বলেন, বাংলার প্রতি বঞ্চনা হচ্ছে দীর্ঘকাল ধরে- এটা দীর্ঘ দিন ধরেই তিনি লক্ষ্য করেছেন। তিনি আরও বলেন বংলার যদি কেউ বড় হয়ে যায় তাহলে তাঁকে নিচে টেনে নামানোর টেষ্টা করা হয়। সেখানে সুভাষচন্দ্র বসু থেকে শুরু করে শ্যামা প্রসাদ মুখোপাধ্যায়- কাউকেই রেয়াত করা হয়নি বলেও অভিযোগ করেন মুখ্যমন্ত্রী। 

ভাষা দিবসের দিনে তিনি রাজ্যের সকল বাসিন্দাদের কাছে জয় বাংলা বলার আবেদন জানিয়েছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন যখন কেউ আপনাকে ফোন করবে তখন তার প্রতিউত্তরে হ্যালো না বলে জয় বাংলা বলবেন। বাংলার মাহাত্য তুলে ধরতে তাঁর সরকার বদ্ধপরিকর বলেও জানিয়েছেন তিনি।